নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে গরুচোর সন্দেহে গণপিটুনিতে মোশারফ হোসেন রিপন (৪৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন।

বুধবার ভোর ৪টার দিকে উপজেলার চরফকিরা ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের মুক্তিযোদ্ধা বাজারে সাদ্দাম স্টোরের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

কোম্পানীগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এসএম মিজানুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

নিহত মোশারফ হোসেন রিপন ফেনী জেলার দাগনভূঞা উপজেলার রামনগর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের বাহার মিয়ার বাড়ির মৃত মফিজুর রহমান বাহারের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চরফকিরা ইউনিয়নের অর্জুনতলা এলাকায় জাকির হোসেন নামে এক ব্যক্তির গোয়াল থেকে চারটি বাছুর এবং একই গ্রামের নুর উদ্দিনের গোয়াল থেকে চারটি বাছুর চুরি করে চার চোর। বাছুরগুলো লেগুনায় তুলে পালিয়ে যাওয়ার সময় মালিকরা টের পান। এরপর মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে লোকজন জড়ো করে ট্রাক্টর দিয়ে রাস্তায় ব্যারিকেড দেন।

ব্যারিকেড দিয়ে চরফকিরা ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের মুক্তিযোদ্ধা বাজারে তাদের আটক করে এলাকাবাসী। এ সময় লেগুনায় থাকা চারজনের মধ্যে তিনজন পালিয়ে গেলেও রিপনকে স্থানীয়রা ধরে ফেলে। পরে উত্তেজিত জনতার গণপিটুনিতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। সকাল সাড়ে ৬টার দিকে পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

এসময় তাদের ব্যবহৃত লেগুনায় আগুন ধরিয়ে দেয় লোকজন। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

কোম্পানীগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এসএম মিজানুর রহমান বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছে। পরে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

তিনি আরও জানান, বিভিন্ন গোয়াল থেকে চুরি করা আটটি গরু উদ্ধার করা হয়েছে। বর্তমানে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন আছে। গরু চুরি, উদ্ধার ও গ্রামবাসীর হাতে গণপিটুনিতে নিহতের ঘটনায় পৃথক মামলা ও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।