পটুয়াখালীর দুমকীতে দুধপানরত অবস্থায় দেড় বছরের শিশুর মৃত্যুর পরপরই মায়ের মৃত্যুর তথ্য পাওয়া গেছে। বুধবার দুপুরে উপজেলার পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের ধোপারহাট গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তবে মা-শিশুর এমন মৃত্যু নিয়ে রহস্য তৈরি হয়েছে। পরে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, মৃত মা ও শিশু হলো পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন চৌকিদারের মেয়ে ফাতেমা বেগম (৩০) ও দেড় বছরের নাতি শিফাত। আনোয়ারের পরিবার জানিয়েছে, মায়ের কোলে দুধপানের সময়ই শিফাতের মৃত্যু হয়। ছেলের এমন মৃত্যু সহ্য করতে না পেরে মা ফাতেমা অসুস্থ হয়ে পড়লে পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তবে মা ও শিশুর এমন মৃত্যু নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা। তারা জানিয়েছেন, ফাতেমা মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। তার মৃত্যু হলে শিশুসন্তানের ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কিত ছিলেন। মৃত্যুর সময় শিশুকে সঙ্গে নিয়ে যাওয়ার কথাও বলেছেন। তাদের শঙ্কা, ফাতেমা নিজে বিষপান করে শিশুসন্তানকে বুকের দুধ পান করানোয় দু'জনেরই মৃত্যু হতে পারে।

পাঙ্গাশিয়া ইউপি চেয়ারম্যান গাজী নজরুল ইসলাম বলেন, ‘‘শিশুটির মা ফাতেমা মানসিক ভারসাম্যহীন। সে প্রায়ই প্রতিবেশী ও আত্মীয়স্বজনের কাছে বলত, ‘আমি মারা গেলে আমার এই শিশুসন্তানকে কে দেখাশোনা করবে? তাই ওকেও আমার সঙ্গে নিয়ে যাব।’ হয়তো এমন ধারণা থেকে কিছু একটা ঘটতে পারে। বিষয়টি এখনও স্পষ্ট নয়। তবে ঘটনাটি দুঃখজনক ও মর্মান্তিক।’’

দুমকী থানার ওসি আব্দুস সালাম জানান, মা ও শিশুসন্তানের ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।