রংপুরে জমি-জমা নিয়ে বিরোধের জেরে মা ও মেয়েকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় তোলপাড় শুরু হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ এখন পর্যন্ত ছয় জনকে গ্রেপ্তার করেছে। এরা হলেন, মিঠাপুকুর উপজেলার শালাইপুর নোয়াখালীপাড়া গ্রামের নুর ইসলামের স্ত্রী জোসনা বেগম (৩৮), পীরগাছা পারুল ইউনিয়নের অনন্দি ধনিরাম গ্রামের শামসুল হকের স্ত্রী রুপভান (৫৫), গোফফার মিয়ার ছেলে জিয়াউর রহমান (৩৫), নুর হোসেনের স্ত্রী রাহেনা বেগম (৩১), রুবেল মিয়ার স্ত্রী রুমানা বেগম (২৫) ও মোহাম্মদ আলীর স্ত্রী দুলালী বেগম (৩০)।

মামলা ও ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায়, অনন্দি ধনিরাম গ্রামের সুজা মিয়ার ছেলে সাজাহান মিয়ার সঙ্গে প্রতিবেশী গোফফার মিয়ার ছেলে জিয়াউর রহমানের জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধ চলছিল। এরই মধ্যে গত বুধবার সকালে জিয়াউর ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা সাজাহানের জমি দখল করে গাছ ও রাস্তা কাটতে থাকেন। এ সময় সাজাহান ও তার পরিবারের লোকজন বাধা দেয়। এতে জিয়াউর ও তার লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে সাজাহানের স্ত্রী গোলাপী বেগম ও মেয়ে রাবেয়া বেগমকে গাছের সঙ্গে বেঁধে মারপিট করেন। পরে স্থানীয়রা ট্রিপল নাইনে ফোন করে বিষয়টি পুলিশকে জানালে পীরগাছা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আহত অবস্থায় গোলাপী ও রাবেয়াকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হলে তোলপাড় শুরু হয়। পরে বৃহস্পতিবার রাতে সাজাহান পীরগাছা থানায় ১৮ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেন।

পীরগাছা থানার ওসি (তদন্ত) আব্দুস শুকুর মিয়া বলেন, আমরা ভিডিও ফুটেজ দেখে বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার রাত পর্যন্ত ৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছি। বাকিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।