বরিশালের উজিরপুর উপজেলায় পল্লিচিকিৎসকের ভুল চিকিৎসায় এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। শনিবার রাতে উপজেলার পীরেরপাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকেই কথিত ওই পল্লিচিকিৎসক পলাতক।

মারা যাওয়া ব্যক্তি নিখিল সরকার (৩৬) স্থানীয় লোকনাথ বাজারে ফার্নিচারের ব্যবসা করতেন। তার স্ত্রী উর্মিলা সরকার অভিযোগ করেন, শনিবার সন্ধ্যার দিকে নিখিল বাড়ি ফেরার পর তার শরীরে অ্যালার্জির সমস্যা দেখা দেয়। শরীরের বিভিন্ন স্থান ফুলে ওঠে। পরে তারা পল্লিচিকিৎসক বাসুদেব মালাকারকে খবর দেন। তিনি গিয়ে নিখিলকে পরপর চারটি ইনজেকশন দেন। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই তার মৃত্যু হয়। ঘটনার পর সটকে পড়েন বাসুদেব। আত্মগোপনে থাকায় এ বিষয়ে তার বক্তব্য জানা যায়নি। তার স্ত্রী বাসানী মালাকার বলেন, শনিবার রাত থেকে তার স্বামী কোথায় আছেন, তিনি জানেন না।

পীরেরপাড় গ্রামের একাধিক বাসিন্দা জানান, এক সময় বাসুদেব দিনমজুরের কাজ করতেন। বছর তিনেক ধরে তিনি লোকনাথ বাজারে ফার্মেসি দিয়ে চিকিৎসা শুরু করেন। কয়েক দিন আগেও বাসুদেবের ভুল চিকিৎসায় একটি শিশু মারা গেছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

ইউপি সদস্য উপেন বিশ্বাস জানান, বাসুদেব মালাকারের বিরুদ্ধে অনুমাননির্ভর চিকিৎসা দেওয়ার অভিযোগ দীর্ঘদিনের।

উজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শওকত আলী বলেন, তারা খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছেন, বাসুদেব মালাকারের ফার্মেসির কোনো লাইসেন্স নেই। চিকিৎসাসেবা দেওয়ার কোনো প্রশিক্ষণও তিনি নেননি।

উজিরপুর মডেল থানার ওসি আলী আর্শাদ জানান, এ ঘটনায় নিখিলের স্ত্রী অভিযোগ দিয়েছেন। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ বরিশাল শেরেবাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।