নেত্রকোনা শহরে চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় তার বাবাকে মারধর করেছে অভিযুক্তদের স্বজনরা। এ ব্যাপারে থানায় মামলা করা হলে পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে। তবে তাদের একজন জামিনে ছাড়া পেয়েই মেয়েটির পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, নেত্রকোনা পৌরসভার পারলার এলাকার রবীন্দ্র সূত্রধরের ছেলে কলেজছাত্র তিতাস সূত্রধর ও এসএসসি পরীক্ষার্থী পার্থ সূত্রধর প্রতিবেশী এক স্কুলছাত্রীকে বেশ কিছুদিন ধরে উত্ত্যক্ত করছিল। তারা মেয়েটিকে দেখলেই নানা আপত্তিকর কথা বলে এবং তার শরীরে ও বাড়িতে ঢিল ছুড়ে মারে। এ নিয়ে ছাত্রীর বাবা প্রতিবাদ করলে গত বুধবার তাকে মারধর করে উত্ত্যক্তকারীদের স্বজনরা। পরে তাকে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে গত বৃহস্পতিবার ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে তিতাস ও পার্থর বিরুদ্ধে নেত্রকোনা মডেল থানায় মামলা করেন। পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠালে বিচারক পার্থর জামিন মঞ্জুর করেন এবং তিতাসকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। জামিনে ছাড়া পেয়ে পার্থ ও তার স্বজনরা মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বাদী ও তার পরিবারকে ভয়ভীতি ও হুমকি দিচ্ছে। এমনকি পরিবারটিকে ক'দিন ধরে বাড়িতে অবরুদ্ধ করে রেখেছে। বাড়ি থেকে বের হলেই নানা হুমকি প্রদর্শন করা হয়। এতে বাদী ও তার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

নেত্রকোনা মডেল থানার ওসি খন্দকার শাখের আহম্মেদ বলেন, বাদীকে হুমকি দেওয়া এবং অবরুদ্ধ করে রাখার বিষয়টি আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।