কক্সবাজারের টেকনাফে ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড় থেকে নিখোঁজের তিন দিন পর শাহিনা নুর (৮) নামের এক রোহিঙ্গা শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সদস্যরা। শুক্রবার বিকেল ৪টার দিকে টেকনাফের নয়াপাড়া নিবন্ধিত মৌচনি সি ব্লকের ক্যাম্পের পাহাড়ি এলাকা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। শাহিনা নুর এই ক্যাম্পের বি ব্লকের বাসিন্দা মো. জোবাইরের মেয়ে। 

লাশ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজারে ১৬’ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম।  

রোহিঙ্গারা জানায়, গত ১ মার্চ ক্যাম্প থেকে দিনের বেলার ঘর থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হয় শাহিনুর নুর। পরে তাকে সম্ভাব্য সব জায়গায় খোঁজাখুঁজি শুরু করেন স্বজনেরা। শুক্রবার বিকেলে রোহিঙ্গাদের সহতায় তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ সদস্যরা। এসময় তার চেহেরা বিকৃত ছিল। নির্মমভাবে শিশুটিকে হত্যা করা হয়েছে। এমনকি তার বাম হাত কেটে বিচ্ছিন্ন করে ফেলা হয়েছে। লাশের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহৃ দেখা গেছে। 

এসপি মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে বিকেলে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। প্রাথমিকভাবে বোঝা যাচ্ছে, এটি হত্যাকাণ্ড। তিন আগে সে নিখোঁজ হয়েছিল। তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ঘটনার সঙ্গে কারা জড়িত বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এ বিষয়ে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

টেকনাফ নায়াপাড়া নিবন্ধিত শরাণার্থী শিবিরের নেতা মো. ইসলাম জানান, ‘নিখোঁজ থাকা এক শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এমন নিষ্ঠুর মানুষ পৃথিবীতে আছে জানা ছিল না। এমনভাবে শিশুটি হত্যা করা হয়েছে তা বলা মুশকির। তার চেহারা চেনা যাচ্ছে না। এমনকি একটি হাত কেটে ফেলা হয়েছে।’

মন্তব্য করুন