গারোপাহাড়ে বেড়াতে গিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ

প্রকাশ: ২৮ জুন ২০২০     আপডেট: ২৮ জুন ২০২০   

শেরপুর প্রতিনিধি

শেরপুরের গারোপাহাড়ে বেড়াতে গিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হলেন এক গৃহবধূ। শনিবার ঝিনাইগাতী উপজেলার বাকাকুড়া গুচ্ছগ্রামের পাশের পাহাড়ের জঙ্গলে এ ঘটনা ঘটে। ধর্ষণের অভিযোগে বাকাকুড়া গ্রামের খোকন মিয়া (২৬) ও রাসেল (২০) নামে দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারা ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে।

পুলিশ জানায়, করোনাকালে গারো পাহাড়ে দর্শনার্থীর আসা-যাওয়া বন্ধ রয়েছে। একদিকে লোকজনের আনাগোনা কম অন্যদিকে বর্ষা মৌসুম। এরইমধ্যে শনিবার দুপুরে শেরপুরের মোবারকপুর গ্রামের দুই সন্তানের জননী ওই নারী এক আত্মীয়কে নিয়ে গজনী অবকাশে যাচ্ছিলেন।

গারোপাহাড়ের বাকাকুড়া গুচ্ছগ্রামের জঙ্গল দিয়ে যাওয়ার সময় তাদের ইজিবাইকের পথরোধ করে কয়েকজন বখাটে। বখাটেরা জোর করে ওই নারীকে গাড়ি থেকে টেনে নামায়। এ সময় তিনি চিৎকার করলেও পাহাড়ি পথে কেউ এগিয়ে আসেনি। পরে জঙ্গলে নিয়ে তাকে দফায় দফায় ধর্ষণ করে ফেলে রেখে যায় বখাটের দল।

পরে ধর্ষণের শিকার ওই নারী ও তার আত্মীয় ঘটনাটি বাকাকুড়া বাজারের লোকজনকে জানালে ঝিনাইগাতী থানায় খবর দেওয়া হয়। পুলিশ অভিযান চালিয়ে দুই ধর্ষককে গ্রেপ্তার করে।

ঝিনাইগাতী থানার ওসি আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে দুই ধর্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জড়িত অন্যদের ধরতে পুলিশ কাজ করছে। তিনি বলেন, ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শেরপুর জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।