চাটখিলে মৃত নারীর করোনা পজিটিভ

প্রকাশ: ০৬ জুন ২০২০   

নোয়াখালী প্রতিনিধি

নোয়াখালীর চাটখিল পৌরসভার ছয়ানী টবগা মহল্লায় মারা যাওয়া এক নারীর করোনা পজিটিভ এসেছে। মারা যাওয়ার সময় তিনি জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। 

চাটখিল পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নওসাদুল করিম বলেন, শনিবার রাতে ওই নারীর স্বামী মারা যাওয়ার ২৪ ঘণ্টার মাথায় রোববার রাতে তিনিও মারা যান। মৃত্যুর আগে তাদের করোনা উপসর্গ ছিল।

নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ও করোনা ফোকাল পার্সন ডা. মো. তামজিদ হোসাইন বলেন, পৌরসভার ছয়ানী টবগা মহল্লায় ৫৫ বছর বয়সী ওই নারী ও তার স্বামী (৬৫) করোনা উপসর্গ নিয়ে আক্রান্ত হয়ে নিজ বাড়িতে ছিলেন। গত শনিবার রাতে ওই নারীর স্বামী বাড়িতে মারা যান। পরিবারের লোকজন করোনা উপসর্গের তথ্য গোপন করে মৃত ব্যক্তিকে দাফন করেন। স্বামী মারা যাওয়ার পর রোববার বিকেলে ওই নারীর অবস্থার অবনতি হলে পরিবারের লোকজন তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের না এনে পৌর সদরের বদলকোট রোডের একটি প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তাকে ভর্তি করানোর চেষ্টা করা হয়। কিন্তু করোনার উপসর্গ থাকায় তাকে ওই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়নি। সন্ধ্যার দিকে তাকে বাড়ি নিয়ে আসা হয় এবং রাত ১১টার দিকে তিনি বড়িতেই মারা যান। 

তিনি বলেন, ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে স্বামী-স্ত্রী মারা যাওয়ায় পরিবারের লোকজন ও প্রতিবেশীরা বিষয়টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষকে জানান। খবর পেয়ে রাত ১২টার দিকে মৃত নারীর বাড়িতে গিয়ে তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। শুক্রবার রাতে আসা ফলাফলে তার করোনা পজিটিভ আসে। এ ঘটনায় মৃত নারীর পরিবারের আট সদস্যের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। 

চাটখিল স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোস্তাক আহম্মেদ জানান, ওই দম্পতি স্ট্রোক করে মারা যান। কিন্তু নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে করোনা পজিটিভ আসে। 

নোয়াখালী সিভিল সার্জন ডা. মো. মোমিনুর রহমান জানান, এটি চাটখিল উপজেলায় প্রথম রোগী যিনি করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। মারা যাওয়ার পর করোনা পজিটিভ হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে।