অর্থমন্ত্রীর মেয়ের কণ্ঠ নকল করে প্রতারণা, ২ যুবক গ্রেপ্তার

প্রকাশ: ১৯ মে ২০২০   

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা

গ্রেপ্তার প্রিন্স -সমকাল

গ্রেপ্তার প্রিন্স -সমকাল

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের মেয়ে ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের চেয়ারপারসন নাফিসা কামালের কণ্ঠ নকল এবং তার নাম ব্যবহার করে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে প্রতারণার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ২ যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারা হলেন- কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার তারাশাইল গ্রামের এনাম মিয়ার ছেলে মো. শাহীন ও পিরোজপুরের ইন্দুরকানী থানার উমেদপুর গ্রামের শহিদুল ইসলাম খোকনের ছেলে আরিফুল ইসলাম প্রিন্স। 

সদর দক্ষিণ মডেল থানার ওসি নজরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ক্রিকেট একাডেমির সমন্বয়ক ও জেলার বরুড়া উপজেলার দীঘলগাঁও গ্রামের বজলুর রহমানের ছেলে আতিকুর রহমান বাদী হয়ে নাফিসা কামালের পক্ষে সদর দক্ষিণ মডেল থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাটি দায়ের করেন। সেই মামলায় গ্রেপ্তারদের মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

পুলিশ ও মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, শাহীন (২৫) ও আরিফুল ইসলাম প্রিন্স (৩০) প্রতারণার মাধ্যমে লোকজনের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্যে নাফিসা কামালের নাম ও ব্যক্তিগত পরিচিতির তথ্য ব্যবহার করে Nafeesa kamal NK নামে একটি ভুয়া ফেসবুক আইডি খোলেন। তারা ২০১৯ সালের ১৫ ডিসেম্বর থেকে চলতি বছরের গত ১০ মে পর্যন্ত ওই আইডি ব্যবহারের মাধ্যমে নাফিসা কামালের কণ্ঠ নকল করে ভয়েস কল দিয়ে দুস্থদের মাঝে মানবিক সহায়তা হিসেবে খাদ্যসামগ্রী বিতরণের কথা বলে নিজেদের বিকাশ নম্বরে টাকা সংগ্রহ করে প্রতারণা করছিল। এভাবে উক্ত ভুয়া আইডি হতে চট্টগ্রামের হালিশহর এলাকার ওয়াবদা এইচ ব্লকের আর ভবনের মৃত জয়নাল আবেদীনের ছেলে মো. এমদাদ চৌধুরীর (৩২) ম্যাসেঞ্জারে ভয়েস কল দিয়ে দুস্থদের মাঝে খাদ্য সহায়তা বিতরণের কথা বলে প্রতারণার মাধ্যমে আসামিরা নিজেদের ০১৮১৯-০৪৫০২৯ ও ০১৮৩৮-৪১৩০২৯ বিকাশ নম্বরের মাধ্যমে ১০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই খাদেমুল বাহার বিন আবেদ জানান, জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার শাহীন ও আরিফুল ইসলাম প্রিন্স অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের মেয়ে ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের চেয়ারপারসন নাফিসা কামালের কণ্ঠ নকল এবং তার নাম ব্যবহারে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা সংগ্রহ করে আত্মসাতের কথা স্বীকার করেছেন। এ ঘটনায় তাদের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরও ২-৩ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে।