মতলবে সাপ্তাহিক হাটে করোনা ঝুঁকি বাড়াচ্ছে

প্রকাশ: ১৬ এপ্রিল ২০২০   

মতলব (চাঁদপুর) প্রতিনিধি

হাটে ক্রেতাদের ভিড়- সমকাল

হাটে ক্রেতাদের ভিড়- সমকাল

মতলব উত্তর ও দক্ষিণ উপজেলার সাপ্তাহিক হাট থেকে করোনা ঝুঁকি বাড়ছে । ইজারাদার ও স্থানীয় প্রভাবশালীরা টোল আদায়ের জন্য নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সাপ্তাহিক হাট বসানো অব্যাহত রেখেছেন । ফলে করনা ঝুঁকির মধ্যে আছেন এসব এলাকার হাজার হাজার মানুষ।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সাপ্তাহিক  হাট ও জনসমাগম নিষেধ থাকলেও মতলবের দুটি উপজেলার সুজাতপুর নন্দলালপুর আমিরাবাদ দুর্গাপুর নারায়ণপুর  মুন্সিরহাট নায়েরগাঁও বাজারে আগের মতোই বসানো হয়েছে সাপ্তাহিক হাট। কেনাকাটায় উপচে পড়া ভিড় ছিল ক্রেতাদের। শারীরিক দূরত্ব বজায় ছিল না কারোরই। আতঙ্কে আছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

সরেজমিন দেখা গেছে, বুধবার মতলব উত্তর উপজেলার সুজাতপুর বাজারে ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড়।  লোকজনের ঠাসাঠাসি অবস্থান।  বৃহস্পতিবার মতলব দক্ষিণ উপজেলার নারায়ণপুর বাজারে একই চিত্র দেখা গেছে।  সাপ্তাহিক হাটের দিন  বাজারগুলোতে লোকে লোকারণ্য। ব্যবসায়ীরা হরেক রকম পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসেছেন। ক্রেতাদেরও উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা যায়।  সুজাতপুর বাজারে গা ঘেঁষাঘেঁষি করে সদাই কেনার জন্য ব্যস্ত মানুষ। বাজারের গলিগুলোতেও মানুষের ভিড়।

সাপ্তাহিক হাটগুলোতে জনসমাগমের মাধ্যমে করনা ঝুকি বাড়ছে বলে মনে করছেন স্থানীয় সচেতন মহল।

ইসলামাবাদ এলাকার ফারুকুল ইসলাম নামে এক ক্রেতা বলেন, ' সদাই কিনতে বাজারে তো আসতে হবেই, আমরাতো ক্ষেত খামারে কাজ করি সপ্তাহে বাজার করি, একবারে কেনার তৌফিক নাই।’

মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জহিরুল হায়াত জানান, খোলা মাঠে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে হাট বসাতে হবে এর ব্যতিক্রম কেউ করে থাকলে আমরা খবর নিয়ে ব্যবস্থা নেব। 

উপজেলা প্রশাসন থেকে সাপ্তাহিক হাট বসানো নিষেধ করে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও বাজার কমিটিকে বলা হলেও সকল নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষিতই রয়ে যাচ্ছে।