আগরতলায় খোলা আকাশের নিচে বাংলাদেশি দম্পতি

প্রকাশ: ২৫ মার্চ ২০২০     আপডেট: ২৫ মার্চ ২০২০   

আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি

খোলা আকাশের নিচে অসহায় বাংলাদেশি দম্পতি

খোলা আকাশের নিচে অসহায় বাংলাদেশি দম্পতি

করোনার কাছে হার মেনেছে মানবতাও। করোনা আক্রান্ত হওয়ার ভয়ে এখন অন্যদের আশ্রয় দেয়ার মানবতা দেখাচ্ছে না কেউ। নিজে এবং পরিবারকে বাঁচানোর চেষ্টায় বিভোর সবাই। করোনাভাইরাসের কারণে আগরতলা লকডাউন করে দেয়ায় চিকিৎসা শেষে বাংলাদেশী এক দম্পতি আটকা পড়েছেন সেখানে।

আবাসিক হোটেলসহ সবকিছু বন্ধ। কিভাবে তারা বাংলায় যাবেন? আগরতলায় কোথায় থাকবেন? এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েন ওই দম্পতি। এমনই পরিস্থিতিতে কোথাও সাহায্য না পেয়ে বাংলাদেশি এক দম্পতি আশ্রয় নেন আগরতলার বিক্রম সাগর জলাশয়ের পশ্চিমপাড়ে খোলা আকাশের নিচে। পরে মঙ্গলবার মধ্যরাতে বাংলাদেশী এক ব্যবসায়ীর সহায়তায় সেখানকার আরেক সংবাদকর্মী মাধ্যমে ওই দম্পতির ঠাঁই হয়েছে আগরতলা হজ্ব ক্যাম্পে। 

ওই দম্পতি হলেন কুমিল্লা জেলার ঠাকুরা পাড়ায় ইয়াকুব আলী এবং শিরিনা বেগম। তারা চিকিৎসার জন্য গত ৫ মার্চ তিনি এবং তার স্ত্রী আগরতলা হয়ে চেন্নাই গিয়ে ছিলেন। মঙ্গলবার সকালে তারা বিমানে চেন্নাই থেকে আগরতলা আসেন।কিন্তু আগরতলায় এসেই তারা জানতে পারেন স্থলবন্দর বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

ব্যবসায়ীক কাজে আগরতলায় অবস্থান করছিলেন আখাউড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের সদস্য মো. হান্নান। তিনি বলেন, ইয়াকুব আলী তার স্ত্রীকে নিয়ে খোলা আকাশে নিচে সময় কাটাছিলেন। এসময় আমি আমার বন্ধু আগরতলার সাংবাদিক বিকি'র সহয়োগিতায় মঙ্গলবার মধ্য রাতে তাদের হজ্ব ক্যাম্পে জায়গা হয়েছে। 

হান্নান আরও বলেন, ইয়াকুব আলী আমাকে জানিয়েছেন তিনি জানতেন লক ডাউনের কথা। তাই তিনি চেন্নাই থেকে দেশে ফিরে যাওয়ার জন্য আগরতলা আসেন বিমানে। ইয়াকুব আলী দেশে ফিরতে চাইছেন। এই ক্ষেত্রে সবার সাহায্য কামনা করছেন তিনি।