তিন র‌্যাবসহ ৫ জনকে পতাকা বৈঠকে হস্তান্তর করল বিএসএফ

প্রকাশ: ১০ অক্টোবর ২০১৯      

বুড়িচং (কুমিল্লা) প্রতিনিধি

বৃহস্পতিবার বিকেে বিএসএফ ও বিজিবির পতাকা বৈঠকের পর তিন র‌্যাবসহ ৫ জনকে ফেরত দেওয়া হয়। ছবি: সমকাল

কুমিল্লার ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলার শশীদল ইউনিয়নের আশাবাড়ি এলাকার ভারত সীমান্ত পিলারের কাছ থেকে বৃহস্পতিবার সকাল সাতটায় র‌্যাবের তিন সদস্য ও তাদের দুই নারী সোর্সকে ধরে নিয়ে যায় ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। পরে বিকেল চারটায় ওই সীমান্তের বিএসএফ ও বিজিবির (বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ)  পতাকা বৈঠকের পর তাদের ফেরত দেওয়া হয়। 

তারা হলেন- র‌্যাব-১১ এর কনস্টেবল আবদুল মজিদ, রিগেন বড়ুয়া, সৈনিক ওয়াহিদ মিয়া এবং র‌্যাবের দুই নারী সোর্স কুমিল্লা মহানগরীর শুভপুরের খুকি লিজা ও সুজানগরের মনি আক্তার।

বিজিবি, পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, র‌্যাব-১১ সিপিসি-২ এর সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি দল বৃহস্পতিবার সকালে শশীদল ইউনিয়নের আশাবাড়ি এলাকায় মাদক উদ্ধারে অভিযানে যায়। সকাল আনুমানিক সোয়া সাতটায় ভারত সীমান্তবর্তী আশাবাড়ি এলাকার ২০৫৯ নং আন্তর্জাতিক সীমানা পিলারের কাছে মাদক ব্যবসায়ী আবুল খায়ের মিয়ার বাড়িতে গিয়ে তাকে আটকের চেষ্টা চালায় র‌্যাব। এ সময় তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে র‌্যাব সদস্যদের ওপর পাল্টা হামলা চালায়। এরপর তাদের বিএসএফের কাছে হস্তান্তর করা হয়। খবর পেয়ে বিজিবির সংকুচাইল ক্যাম্পের সুবেদার নুরুল ইসলাম র‌্যাবের তিন সদস্যসহ পাঁচজনকে ফেরত পেতে বিএসএফের কাছে চিঠি পাঠায়। ওই চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে বিকেল চারটার দিকে আশাবাড়ি এলাকায় ২০৫৯ পিলারের কাছে নোম্যান্সল্যান্ড এলাকায় বিএসএফ-বিজিবি পতাকা বৈঠক হয়। বৈঠক শেষে বিকেল ৫টার দিকে ওই পাঁচজনকে ফেরত দেয় বিএসএফ।

কুমিল্ল শংকুচাইল বিওপির কমান্ডার সুবেদার নুরুল ইসলাম জানান, রহিমপুর-আ্শাবাড়ি সীমান্তের ২০৫৯ নং আর্ন্তজাতিক সীমানা পিলারের কাছে ৩ র‌্যাব সদস্য তাদের দুই সোর্স নিয়ে ভুলক্রমে ভারতের ভেতরে ঢুকে গেলে স্থানীয়রা তাদের আটকে মারধর করে। খবর পেয়ে  বিএসএফ গিয়ে তাদের নিয়ে যায়। 

কুমিল্লা র‌্যাব-১১ সিপিসি-২ এর ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মুহিতুল ইসলাম জানান, পতাকা বৈঠকের পর তিন র‌্যাব সদস্যসহ পাঁচজন ও তাদের সঙ্গে থাকা অস্ত্র, গুলি, মোবাইল এবং অন্যান্য জিনিস ফেরত দিয়েছে বিএসএফ।

পতাকা বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন সংকুচাইল বিজিবি ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার নুরুল ইসলাম এবং বিএসএফের পক্ষে নেতৃত্ব দেন ভারতের ৭৪ বিএসএফ পরিদর্শক আর কে মিঠু।