দেশে বেড়ে চলা করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনতে বিয়েসহ সামাজিক অনুষ্ঠান বন্ধ রাখতে হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

জেলা প্রশাসক সম্মেলনের তৃতীয় দিন বৃহস্পতিবার চতুর্থ অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান জাহিদ মালেক। 

জাহিদ মালেক বলেন, দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। বুধবারও সাড়ে নয় হাজার মানুষ শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তের হার ২৫ শতাংশ ছাড়িয়েছে। এতে সরকার আতঙ্কিত না হলেও বিষয়টি আশঙ্কাজনক। 

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণ মোকাবিলায় জেলা প্রশাসকদের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। আমরা জেলা প্রশাসকদের বলেছি, আপনারা গতবার যেভাবে করোনা নিয়ন্ত্রণে সহযোগিতা করেছেন এবারও সেটি করতে হবে। আপনারা যেহেতু জেলার দায়িত্বে আছেন, সবাইকে নিয়ে কাজ করেন। স্থানীয় প্রতিনিধি যারা আছে, তাদের নিয়েও কাজ করেন। তাদের নিয়ে কাজ করলে আপনাদের কাজ আরও ভালো হবে, সফল হবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ওমিক্রনের কারণে ছড়িয়ে পড়া সংক্রমণের লাগাম টেনে ধরতে সরকার ১১ দফা বিধিনিষেধ আরোপ করেছে। এগুলো বাস্তবায়নের মূল হাতিয়ার জেলা প্রশাসন। 

‘বাসে, ট্রেনে, স্টিমারে যখন লোক চলবে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে, মাস্ক পরতে হবে; সামাজিক দূরত্ব যতটুকু সম্ভব মানতে হবে। বিয়েসহ সামাজিক অনুষ্ঠান বন্ধ রাখতে হবে। এ বিষয়গুলো আমরা তুলে ধরেছি। আমরা বলেছি যে, বিভিন্ন বন্দরে স্ক্রিনিং চলছে সেগুলো যেন তারা ঠিকমতো দেখেন। যারা কোয়ারেন্টিনে আছেন তারা অনেক সময় এটি ঠিক মতো মানেন না। এ বিষয়ে নজরদারি করতে বলেছি। যারা স্বাস্থ্যবিধি মানবে না তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে বলেছি’, বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

জাহিদ মালেক বলেন, জেলা পর্যায়ের হাসপাতালগুলোয় ১০টি করে আইসিইউ শয্যা এবং ১০টি ডায়ালাইসিস শয্যার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এটি এখন ইনসটলেশনের পর্যায়ে আছে। এটি আগেই একনেকে পাস করা। অল্প সময়ের মধ্যেই সব জেলায় এগুলো বসে যাবে।