ক্যাম্পাস

ক্যাম্পাস


প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা

বিইউবিটি সাইবার কন

প্রকাশ: ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

তরিকুল ইসলাম

 বিইউবিটি সাইবার কন

অতিথিদের সঙ্গে বিজয়ী শিক্ষার্থীদের উচ্ছ্বাস- ছবি :সংগ্রহ

বর্তমান যুগ তথ্যপ্রযুক্তির যুগ। একবিংশ শতাব্দীর তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর এই বিশ্বে প্রোগ্রামিং বিষয়টি রয়েছে শীর্ষে। বিশ্বের প্রায় সব দেশেই প্রতিনিয়ত প্রোগ্রামিং চর্চা ও প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা হচ্ছে। প্রতি বছর আন্তর্জাতিকভাবে সংঘটিত হয় এসিএম-আইসিপিসি বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা।

বিশ্বের অন্যান্য উন্নত দেশগুলোর সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশ প্রোগ্রামিং বিষয়ে অনেক দূর এগিয়ে গেছে। প্রতি বছরই বাংলাদেশ এনজিপিসি, এনসিপিসিসহ জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে।

তথ্যপ্রযুক্তির এই বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে প্রতি সেমিস্টার বিইউবিটি একটি প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে, যাতে করে শিক্ষার্থীরা তাদের প্রোগ্রামিং দক্ষতার বিচার করতে পারে এবং প্রোগ্রামিংয়ের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারে। এই সেমিস্টারের আয়োজনে ছিল একটু ভিন্নতা। বিইউবিটি সিএসই ডিপার্টমেন্ট এবং আইটি ক্লাব যৌথভাবে ১০ দিনব্যাপী প্রোগ্রামিং উৎসব সাইবার কন আয়োজন করে।

উৎসবটির বড় অংশজুড়ে ছিল প্রোগ্রামিং ক্যাম্প। প্রোগ্রামিং ক্যাম্পটি ৪, ৫ এবং ৬ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হয়। সিএসই বিভাগ থেকে যারা প্রোগ্রামিং ক্যাম্পের জন্য আবেদন করেছিল এবং নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে সফলভাবে উত্তীর্ণ হয়েছিল তাদের এই ক্যাম্পের জন্য নির্বাচিত করা হয়েছিল। ক্যাম্পটিতে বিগিনার ও ইন্টারমিডিয়েট দুই ক্যাটাগরিতে অংশগ্রহণকারীদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।অংশগ্রহণকারীদের তিন দিনব্যাপী বিশেষজ্ঞ কোচ দ্বারা প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। ক্যাম্পটিতে প্রোগ্রামিং ও প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা বিষয়ক খুঁটিনাটি অনেক কিছু শেখানো হয়। ক্যাম্পটির মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রোগ্রামিং বিষয়ক উৎসাহ তুলনামূলক বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানায় বিইউবিটি কর্তৃপক্ষ। ভবিষ্যতে শিক্ষার্থীরা আরও বেশি প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতাগুলোতে অংশগ্রহণ করবে বলে আশাবাদী তারা।পাশাপাশি ৫ ও ৬ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হয় পাইথন ফর মেশিন লার্নিং ওয়ার্কশপ। সিএসই বিভাগের তৃতীয় ও চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী এবং ইইই বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থীরা এ ওয়ার্কশপে অংশগ্রহণ করেছিল। ওয়ার্কশপটিতে পাইথন বিষয়ক বেসিক অনেক কিছু শেখানো হয়েছে।তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শাহনেওয়াজ আবিদ জানায়, ক্যাম্পটির দ্বারা অনেক বেসিক বিষয় শেখা হয়েছে এবং সব মিলিয়ে ক্যাম্পের ম্যানেজমেন্ট অনেক ভালো ছিল। এবং এখন থেকে প্রোগ্রামিং প্র্যাকটিস নিয়মিত চালু রাখবে বলেও জানায় সে। চতুর্থ বর্ষের এক শিক্ষার্থী আজরিন নাহার আনিকা জানায়, পাইথন ওয়ার্কশপ দ্বারা পাইথন বিষয়ক বেসিক অনেক ধারণা লাভ করা সম্ভব হয়েছে। সবমিলিয়ে সন্তুষ্ট অংশগ্রহণকারীরা। ১৩ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হয় সিনিয়র ও জুনিয়র দুই ক্যাটাগরির প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা। অতঃপর ১৪ সেপ্টেম্বর সমাপনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সমাপ্ত হয় উৎসবটি। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) সিএসই বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. সাইদুর রহমান। বিইউবিটি সিএসই বিভাগের চেয়ারম্যান ড. আমীর আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বিইউবিটির ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ ফাইয়াজ খান, সাউথ ইস্ট ইউনিভার্সিটির সিএসই বিভাগের চেয়ারম্যান ড. শাহরিয়ার মনজুর, রেডিও ধ্বনির আরজে আল নাহিয়ান প্রমুখ। অধ্যাপক সাইদুর রহমান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়গুলাতে সিএসইর শিক্ষার্থীদের বেসিক প্রোগ্রামিংয়ে ঘাটতি দেখা যায়। এ থেকে বেরিয়ে আসতে না পারলে কাট পেস্ট ইঞ্জিনিয়ার তৈরি হবে। সম্পূর্ণ আয়োজনের তত্ত্বাবধানে ছিলেন বিইউবিটি সিএসই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. সাইফুর রহমান। অতিথিদের মধ্যে সম্মাননা পদক তুলে দেওয়া হয়।

অতিথিদের বক্তব্য শেষে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। প্রোগ্রামিং ক্যাম্পের ইন্টারমিডিয়েট লেভেলের প্রথম দুই বিজয়ী দল এবং বিগিনার লেভেলের প্রথম দুই বিজয়ী দলের শিক্ষার্থীদের মেডেল দেওয়া হয়। প্রোগ্রামিং কনটেস্টের সিনিয়র ও জুনিয়র উভয় ক্যাটাগরির প্রথম স্থান অধিকারীদের মধ্যে ক্রেস্ট ও মেডেল তুলে দেওয়া হয়। এ ছাড়াও প্রথম স্থান অধিকারীদের মধ্যে পরবর্তী সেমিস্টার ফির ওপর ৪০ শতাংশ ওয়েভার দেওয়া হবে বলেও ঘোষণা করা হয়। দ্বিতীয় স্থান অধিকারীদের মধ্যে মেডেল তুলে দেওয়া হয় এবং পরবর্তী সেমিস্টার ফির ওপর ২৫ শতাংশ ওয়েভার দেওয়া হবে বলে ঘোষণা করা হয়। সম্পূর্ণ কনটেস্টের অনলাইন জাজ পার্টনার ছিল বিইউবিটির শিক্ষার্থী নাজমুল আলম নয়নের তৈরি পড়ফবঃড়.রিহ নামক অনলাইন জাজ। এ আয়জনের প্রিন্ট মিডিয়া পার্টনার ছিল দৈনিক সমকাল, বেভারেজ পার্টনার ছিল প্রাণ ফ্রুটো, রেডিও পার্টনার ছিল রেডিও ধ্বনি, অনলাইন মিডিয়া পার্টনার হিসেবে ছিল ইউথ ভিলেজ বিডি। এ আয়োজনের সব পার্টনারদের সম্মাননা পদক দেওয়া হয়।