ন্যাশনাল আর্থ অলিম্পিয়াড

সবুজের গান গাই

প্রচ্ছদ

প্রকাশ: ০৪ আগস্ট ২০১৯      

নিশাত তাসনিম আনিকা

সবুজের গান গাই

ন্যাশনাল আর্থ অলিম্পিয়াড জাতীয় পর্যায়ে অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়া হয়েছিল ১৫০ জন শিক্ষার্থীকে- ছবি :সংগ্রহ

বিখ্যাত 'আইস এইজ' মুভিতে তোমরা অনেকেই হয়তো দেখেছ কীভাবে বাদামের পেছনে ছুটতে গিয়ে মহাদেশিক বিচ্যুতি ঘটে যায়। বলা বাহুল্য সে রকমটা আসলে বাস্তবে ঘটেনি। বাস্তবে এ ধারণার ভিত্তি টেকটোনিক প্লেট থিওরি। অন্যদিকে এও হয়তো জেনে থাকবে যে, কিছুদিন আগে গ্রিনল্যান্ডে প্রায় ২০০ কোটি টনের পাহাড়সমান বরফ গলে যায় মাত্র ২৪ ঘণ্টায়। বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির কারণে বিজ্ঞানীরা যা ধারণা করেছিলেন তার চেয়েও অধিক হারে গলছে বরফ, যা বর্তমান পরিস্থিতিতে বেশ উদ্বেগজনক। খবরটি মোটেও স্বস্তিদায়ক না হলেও এসব বিষয়ে আগ্রহীদের জন্য রয়েছে পৃথিবী ও পরিবেশ সম্পর্কে জানার একটি অনন্য সুযোগ। তোমাদের মতো উচ্চ বিদ্যালয়পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের জন্য সপ্তমবারের মতো আয়োজন করা হয়েছিল 'ন্যাশনাল আর্থ অলিম্পিয়াড'। অষ্টম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির যে কোনো শিক্ষার্থী এ অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণ করে যেটি থেকে বাছাইকৃত শিক্ষার্থীরা এ বছর দক্ষিণ কোরিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য 'আন্তর্জাতিক আর্থ সায়েন্স অলিম্পিয়াড'-এর ১৩তম আসরে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করবে।

'বিশুদ্ধ বায়ু, সুপেয় পানির অঙ্গীকার, আগামী প্রজন্মের অধিকার'- এই স্লোগান সামনে রেখে তিন পর্বের এই আয়োজনের প্রথম পর্বটি হয়েছে গত ২০ জুলাই। ঘরে বসেই ওয়েবসাইটে কিংবা মুঠোফোনে অ্যাপ ডাউনলোডের মাধ্যমে অংশ নিয়েছিল এক হাজার ১০০ শিক্ষার্থী। এ ক্ষেত্রে নিবন্ধনও করা হয়েছে বিনামূল্যেই। অলিম্পিয়াডে প্রশ্ন ছিল ভূতত্ত্ববিদ্যা, আবহাওয়াবিদ্যা, সমুদ্রবিজ্ঞান, পরিবেশ বিজ্ঞান, জ্যোতির্বিজ্ঞান ইত্যাদি মজার ও গুরুত্বপূর্ণ সব বিষয় নিয়ে। এতে অংশগ্রহণকারীরা পেয়েছে প্রিয় ধরণীকে গভীরভাবে জানার সুযোগ। এ ছাড়া হতে পারবে বিশ্বজোড়া পাঁচ শতাধিক অ্যালামনাই নেটওয়ার্কের সদস্য।

প্রথম পর্বের বিজয়ীরা পেয়েছে ২৬ জুলাই ঢাকার ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশে (আইইউবি) অনুষ্ঠিত 'গ্রিন ডে ট্রেইনিং' এবং ২৭ জুলাই জাতীয় পর্যায়ে অংশগ্রহণের সুযোগ। গ্রিন ডে ট্রেইনিং পরিপূর্ণ ছিল দিনব্যাপী পরিবেশ, স্বাস্থ্য, নেতৃত্ব এবং জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে সাজানো সেশন এবং মজার মজার গেমস দিয়ে। জাতীয় পর্যায়ে অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়া হয়েছিল ১৫০ জন শিক্ষার্থীকে। জাতীয় পর্যায়ের বিজয়ীরা ২ আগস্ট নির্ধারণী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে এবং সেরা চারজন পাচ্ছে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ। চোখ রাখ 'facebook.com/byei.org'
' আমাদের পরবর্তী NEO 2020-এ অংশগ্রহণ করতে চাইলে। ন্যাশনাল আর্থ অলিম্পিয়াড আয়োজন করছে 'Bangladesh Youth Environmental Initiative (BYEI)' নামের স্বেচ্ছাসেবী তরুণ পরিবেশবাদীদের একটি সংগঠন। এ সংগঠনটির উদ্যোগে ২০১৩ সালে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক আর্থ সায়েন্স অলিম্পিয়াডে বাংলাদেশ দল প্রতিনিধিত্ব করে। প্রথমবারের অংশগ্রহণেই বাংলাদেশ দল অর্জন করে একটি রৌপ্য পদক ও তিনটি ব্রোঞ্জ পদক, যা অবিশ্বাস্য! চারবার অংশগ্রহণেই বাংলাদেশের প্রতিনিধিরা অর্জন করেছে সম্মানজনক পদক।

পরবর্তী খবর পড়ুন : মনে মনে

অন্যান্য