বাকি বিক্রয় বন্ধ

প্রকাশ: ১৯ আগস্ট ২০১৯      

মুহসিন ইরম

* বাতেন ভাই মুদি দোকান খোলার পর থেকেই একের পর এক বিড়ম্বনা আর বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়ছেন। প্রথম দিকে বাতেন ভাই দোকানের সামনে ও পাশের দেয়ালে একটি স্টিকার লাগালেন। তাতে লাল অক্ষরে লেখা 'আজ নগদ কাল বাকি'।

এক বেরসিক ব্যক্তি প্রথম দিনে নগদ টাকায় একটি লজেন্স কিনে নিয়ে গেল এবং পরদিন এসে ৫ লিটার তেল আর দুই কেজি আটা দিতে বলল। যথারীতি তাকে তেল-আটা দেওয়া হলো। তবে বিপত্তি বাধল সে যখন নগদ টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানাল, অর্থাৎ সে বাকি নিতে আগ্রহী।

বাতেন ভাই ক্ষিপ্ত হয়ে পাশের স্টিকারে ইঙ্গিত করে বললেন-

- কী আছে পড়ে দেখেন।

লোকটা না তাকিয়েই জবাব দিল-

- গতকালই পড়েছি, এখানে লেখা 'আজ নগদ কাল বাকি'। এ জন্যই আমি গতকাল নগদ লজেন্স নিয়ে আজ বাকিতে তেল-আটা নিতে এলাম। এখানে আমি আদেশের ব্যত্যয়টা করলাম কী?

বাতেন ভাই জবাব দিতে না পেরে বাকি দিতে বাধ্য হলেন। ঠিকই। লোকটি তো

লিখিত বক্তব্যের খেলাফ কিছু করেনি।

লোকটি বিদায় হওয়ামাত্র বাতেন ভাই এই স্টিকার খুলে নতুন স্টিকার লাগালেন। তাতে লেখা-

'বাকি চাহিয়া লজ্জা দিবেন না'।

এবার বাতেন ভাইয়ের চোখেমুখে তৃপ্তি ফিরে এলো। এখন নিশ্চয়ই কেউ আর বাকি চাইবে না। পরের দিন আবারও বাকিতে তেল-আটা নিয়ে যাওয়া লোক হাজির।

আজ তার লাগবে তিন কেজি আলু, এক কেজি লবণ। তাকে তার কাঙ্ক্ষিত পণ্য দেওয়া হলো। পণ্য হাতে নিয়ে সে বলল- বাকির খাতায় লিখে রাখুন।

বাতেন ভাইয়ের মাথায় রক্ত চড়ে গেল।

স্টিকারে দিকনির্দেশ করে বললেন-

- কী লেখা পড়েন।

লোকটি এবারও লেখাটির দিকে না তাকিয়ে জবাব দিল-

- সমস্যা কী? আমি তো কোনো সমস্যা দেখি না। বাকি চাইলে আপনি লজ্জা পান- এটা আপনার ব্যক্তিগত দুর্বলতা। তবে বাকি দেন না, এমনটা নিশ্চয়ই না। তা ছাড়া এমন কোনো কিছু বলাও নেই ওখানে।

আসলেই তো। বাকি চাহিয়া লজ্জা দিতে না করা হয়েছে, বাকি দেওয়া হবে না সেটা তো বলা হয়নি। অতঃপর তাকে বাকি দিতে হলো। এরপর অনেক খুঁজে

বাতেন ভাই নেট ঘেঁটে নতুন একটি স্লোগান খুঁজে পেলেন।

তিনি এবার নতুন স্টিকারে লিখলেন-

'নগদ বিক্রি পেটে ভাত, বাকি বিক্রি মাথায় হাত'।

স্টিকার লাগিয়ে মনে মনে ভাবলেন, আজ আসুক লোকটা। বাকি চাওয়ার কোনো কায়দা নেই।

লোকটি সেদিনও এলো। এসেই পেঁয়াজ-সাবান অর্ডার দিল এবং বাকির খাতায় লিখতে বলল।

বাতেন ভাই যথারীতি বললেন-

- স্টিকারটা পড়েন ভাইজান।

লোকটি বলল-

- হুম পড়েছি, এখানে আপনি বাস্তবতা খুব নিখুঁতভাবে তুলে ধরেছেন। তবে আপনি বাকি দেবেন না সেটা কিন্তু উল্লেখ করেননি।

তা ছাড়া মাথায় হাত কেবল বাকি বিক্রির কারণে নয়, নগদ বিক্রি করলেও দিতে হয়। মাথা চুলকালে বা পাখি ইয়ে করলে মাথায় হাত না দিয়ে কোনো উপায় কিন্তু নেই।

নিরুপায় হয়ে আজও বাকি দিলেন বাতেন ভাই এবং করণীয় ঠিক করতে তৎক্ষণাৎ জরুরি ফোন দিলেন আমাকে।

আমি এসে সব শুনে বাতেন ভাইকে অভয় দিলাম।

এসব প্রচলিত বাক্যে কাজ হবে না জানিয়ে নিজে একটা স্টিকার লিখে দিলাম। স্টিকারে লাল লাল অক্ষরে লেখা 'বাকি বিক্রয় বন্ধ'।

এরপরের দিনও বাকিতে কিনতে আগ্রহী লোকটি এসেছিল বটে, তবে আর বাকি চাওয়ার সাহস দেখায়নি। স্বস্তির খবর হচ্ছে, বাকি বিক্রয় নিয়ে বাতেন ভাইয়ের টেনশন আপাতত কমেছে।

পরবর্তী খবর পড়ুন : ভিয়েতনামের বড়শি

অন্যান্য