ঈদের সিনেমা

প্রকাশ: ০৮ আগস্ট ২০১৯      
ঈদের সিনেমা

'বেপরোয়া' ছবিতে ববি ও রোশন

ঈদুল আজহার আমেজ বইছে সর্বত্র। সেটা চলচ্চিত্র পাড়ায়ও। তবে বিগত বছরগুলোর মতো এ আমেজ চলচ্চিত্র পাড়ায় নেই। এবারের ঈদুল আজহা উপলক্ষে দেশজুড়ে মুক্তির অপেক্ষায় আছে ৪টি ছবি। নিজ নিজ প্রযোজনা সংস্থা থেকেই ছবিটি ৪টি মুক্তির বিষয় নিশ্চিত করা হয়েছে। ছবিগুলো হচ্ছে- 'মনের মতো মানুষ পাইলাম না', 'বেপরোয়া', 'ভালোবাসার জ্বালা' ও 'ভালোবাসার রাজকন্যা'। ছবিগুলো নিয়ে লিখেছেন অনিন্দ্য মামুন

ঈদে প্রেক্ষাগৃহে নতুন ছবি- এ যেন বাঙালিয় ঐতিহ্য। তবে সিনেমা ব্যবসা খুব একটা ভালো যাচ্ছে না। ছবি মুক্তির পর নায়ক-নায়িকারা ব্যবসা সাফল্যের ফাঁকা আওয়াজ তুললেও প্রযোজকের কাছে ভিড়লে পাওয়া যায় আসল তথ্য। লাভের মুখ তো দূরের কথা, আসল টাকার অর্ধেকও তোলা যায় না বলে জানান। ২০১৯ সালে মুক্তি পাওয়া কোনো ছবিরই ব্যবসা সাফল্যের খবর নেই। তাই রোজার ঈদের ছবির পর শুধু দেখার মতো ছবি মুক্তি দেওয়া হয়েছে 'আব্বাস'। বাকি সপ্তাহগুলো চলেছে ভারতীয় আমদানি করা ছবির দাপট। তবে ছবির দাপট থাকলেও হলে দর্শকের দাপট ছিল শূন্যের কোঠায়। ভারতীয় আমদানি করা ছবি বাংলাদেশের দর্শক টানতে বরাবরই ব্যর্থ হচ্ছে। তবুও দেশীয় ছবির সংকটের অজুহাত দিয়ে প্রদর্শন করা হচ্ছে ভারতীয় ছবি।

তবে ঈদের বিষয়টি আলাদা। বাংলাদেশের তিনটি বড় উৎসবের মধ্যে দুটি হচ্ছে ঈদ। একটি রোজার ঈদ, আরেকটি কোরবানির। এ দুই ঈদকে সামনে রেখে ছবি মুক্তি দেওয়ার প্রতিযোগিতা প্রতিবারই লক্ষণীয়। সাজানো হয় নানা ব্যবসায়িক পরিকল্পনা। সারাবছর হলগুলো অনেকটা ফাঁকা পড়ে থাকলেও ঈদের আগে চাঙ্গা হয়ে ওঠে। ধুয়ে-মুছে পরিস্কার করা হয়। অনেক হলকে আবার রাঙাতেও দেখা যায়। এসব কিছু ঈদের ছবির দর্শক টানতেই। কারণ ঈদে সাধারণত সব শ্রেণির মানুষ প্রেক্ষাগৃহে নতুন মুক্তি পাওয়া ছবি দেখতে যান। বিপুলসংখ্যক দর্শকের জন্যই ঈদে বড় বাজেটের ছবি মুক্তি দেওয়া হয়। এ সময় মুক্তিপ্রাপ্ত ছবিতেও থাকে ঈদের আনন্দমুখর আবহ। বছরের অন্যান্য সময়ের ছবির চেয়ে ঈদকেন্দ্রিক মুক্তি দেওয়ার লক্ষ্যে নির্মিত ছবিগুলো নিয়ে নির্মাতাদের থাকে বিশেষ প্রস্তুতি। শুধু সিনেমা নির্মাণের ক্ষেত্রেই নয়, প্রচারণাতেও থাকে ভিন্নতা। প্রতি ঈদে নতুন সিনেমা মুক্তি দিয়ে প্রযোজক, পরিচালক কিংবা অভিনেতা-অভিনেত্রীসহ সংশ্নিষ্টরা আশায় থাকেন তাদের সিনেমা হিট, সুপারহিট এমনকি ব্লকবাস্টার হওয়ার জন্য। তাই বছরের অন্য সময়ের তুলনায় ঈদের ছবি নিয়ে অনেক আগে থেকেই ঢাকঢোল পেটানো শুরু হয়ে যায়। সাধারণত ঈদের ২০-২৫ দিন আগে থেকেই দেশজুড়ে শুরু হয়ে যায় দেয়ালে দেয়ালে পোস্টার সাঁটানো। শহরের অলিগলিতেও দেখা দেয় একই পরিস্থিতি। কিন্তু এবারের কোরবানির ঈদকে কেন্দ্র করে এমনটি খুব একটা চোখে পড়েনি। কেন পড়েনি, সেটা কম-বেশি সবারই অনুমেয়। ঈদের ছবি নিতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হল মালিক ও কর্মকর্তারা আনাগোনা শুরু করে দিয়েছেন সিনেমা পাড়াখ্যাত কাকরাইলে। তবে এ আনাগোনা বছরের অন্যসব উৎসবের মতো দেখা যাচ্ছে না।

শাকিব-বুবলীর 'মনের মতো মানুষ পাইলাম না'

শাকিব খান যেন এক উৎসবের নায়ক। উৎসবে তার ছবি মুক্তি পাওয়া মানেই ব্যবসা চাঙ্গা। তাই গত ঈদের মতো এই ঈদেও থাকছে শাকিব খানের ছবি। তবে গত ঈদে শাকিব খানের দুটি ছবি পাসওয়ার্ড ও নোলক মুক্তি পেলেও এ ঈদে মুক্তি পাচ্ছে একটি ছবি। পাসওয়ার্ডে শাকিব খানের নায়িকা ছিলেন বুবলী আর নোলকে ববি। অন্যদিকে নায়িকা হিসেবে শবনম বুবলী যেন ঈদ কাপালি। তার অভিষেকের পর থেকে দেশের প্রায় প্রতিটি উৎসবে থাকছে বুবলীর ছবি। এবারের ঈদুল আজহায় শাকিব খানের যে একটি ছবি মুক্তি পাচ্ছে, সেটিতেও নায়িকা বুবলী। ছবির নাম 'মনের মতো মানুষ পাইলাম না'। পরিচালনা করেছেন জাকির হোসেন রাজু। ছবিটির কাহিনী, সংলাপ ও চিত্রনাট্যও তার। ছবিটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান দেশ বাংলা মাল্টিমিডিয়া। প্রযোজনা সংস্থার কর্ণধার এনামুল আরমান জানিয়েছেন, ঈদ উৎসবে দেশের দেড় শতাধিক প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে মনের মতো মানুষ পাইলাম না। আরও জানিয়েছেন ছবিটি সর্বাদিক রেন্টালে বুকিং দেওয়া হচ্ছে।

মনের মতো মানুষ পাইলাম নাতে রয়েছে চারটি গান। গানগুলো লিখেছেন জাকির হোসেন রাজু ও শফিক তুহিন। সুর ও সঙ্গীত করেছেন শফিক তুহিন। কণ্ঠ দিয়েছেন ইমরান, মাহতিম শাকিব, খেয়া, স্বরলিপি ও জাহাঙ্গীর সাইদ। ছবির আবহ সঙ্গীত করেছেন ইমন সাহা। মনের মতো মানুষ পাইলাম না ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন সাবেরী আলম, সাদেক বাচ্চু, মিশা সওদাগর, ডন, বাসার মাসুম প্রমুখ। এদিকে ঈদে শাকিব খানের এসকে ফিল্ম থেকে হলে সরবরাহ করা হচ্ছে উন্নতমানের প্রজেক্টর ও সার্ভার। ঈদের ৪০ থেকে ৫০টি হলে এই মেশিন বসানো হচ্ছে। এই ছবির মাধ্যমে হল গুলাতে এসকে বিগ স্ট্ক্রিনের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হবে বলে জানিয়েছেন শাকিব খান।

বেপরোয়া

এই ছবিটির প্রতি প্রায় বিরক্ত হয়ে আছেন দর্শক। কারণ আগে আরও তিনবার মুক্তির তারিখ নির্ধারিত হয়েছিল। নানা অজুহাত সামনে এনে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান পিছিয়ে দিয়েছে এর মুক্তির তারিখ। তাই শেষে যখন বলা হলো ঈদের ছবি-বিশ্বাস হয়নি দর্শকের। এবার সত্যিই ঈদে মুক্তি পাচ্ছে বেপরোয়া। ঈদুল আজহায় ছবিটির মুক্তি চূড়ান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়ার সিইও আলিমুল্লাহ খোকন। তিনি জানান প্রায় ৮০টি হলে মুক্তির কথা। রোশান ও ববি অভিনীত ছবিটি থ্রিলার অ্যাকশন ঘরানার। হায়দরাবাদের রামুজি ফিল্মসিটিসহ সেখানকার বিভিন্ন স্থানে ছবিটির শুটিং হয়। ছবিটি নিয়ে আশাবাদী নায়ক রোশান ও নায়িকা ববি। তারা বলেন, দর্শক ছবিটি দেখতে এলে নিরাশ হবেন না। দর্শক যেমন ছবি চান, এটি সবদিক থেকেই তেমন একটা ছবি। বেপরোয়া ছবিতে আছে চারটি গান। এর একটি লিখেছেন বাংলাদেশের সুদীপ কুমার, বাকি তিনটি লিখেছেন ছবির পরিচালক রাজা চন্দ।

ভালোবাসার জ্বালা

ঈদের আরেক ছবির নাম 'ভালোবাসার জ্বালা'। ঈদের মতো এত বড় আয়োজনে এমন ছবি মুক্তি দেওয়া পরিচালকের সাহসী পদক্ষেপই বলছেন অনেকে। এর গল্প, চিত্রনাট্য ও পরিচালনা বশির আহমদের। ছবির প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন নবাগত শাকিল খান ও অর্পা। সাপের গল্প নিয়ে নির্মিত ছবিটি, যাতে দেখা যাবে নাগকে মেরে ফেলেন নায়ক শাকিল খানের বাবা। প্রতিশোধ নিতে শাকিল খানের পুরো বংশ শেষ করে দেওয়ার অঙ্গীকার করে নাগিনী।

পরিচালক জানান, নাগ-নাগিনী নিয়ে গল্পের ছবি দর্শকের এখনও পছন্দ। তারা এখনও এমন গল্পের ছবি দেখতে চান।' ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন শবনম পারভিন, আফজাল শরীফ প্রমুখ। ঈদে প্রায় ১০টি গ্রেক্ষাগৃহে ছবিটি মুক্তির কথা রয়েছে বলে জানালেন পরিচালক।

ভালোবাসার রাজকন্যা

ভালোবাসার আবেদন চিরন্তন। দেশে দেশে কালে কালে ভালোবাসার মহিমা নিয়ে নির্মিত হয়েছে কত কত চলচ্চিত্র! ভালোবাসার চলচ্চিত্র নির্মাণের বৈশ্বিক এই ধারায় সবশেষ সংযোজিত হলো 'ভালোবাসার রাজকন্যা'। এটি পরিচালনা করেছেন রাজু আলীম। এটি তার প্রথম চলচ্চিত্র। অভিনয়ে মৌসুমী হামিদ, শিপন মিত্র, অবিদ রেহান, ফারজানা চুমকি, কাজী রাজু ও মিলি বাশার। ছবিটির দৃশ্যধারণ হয়েছে নেপাল ও বাংলাদেশের বেশ কয়েকটি স্থানে। ভালোবাসার রাজকন্যা চলচ্চিত্রে কাহিনীর বাঁকে বাঁকে রয়েছে টুইস্ট। রাজু আলীম বলেন, 'ছবির গল্পে নতুনত্ব রয়েছে। ১১০ মিনিট ব্যাপ্তির এই ছবিটি দর্শকদের ভালো লাগবে।' জানা গেছে, ছবিটি ঈদের দিন বেলা ২টা ৩০ মিনিটে চ্যানেল আইতে ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার করা হবে। আর ছবির বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে থাকছে রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা এবং ফেরদৌস আরার গান। া

পরবর্তী খবর পড়ুন : সখা সখী

অন্যান্য