কালের খেয়া

কালের খেয়া

ছোট তরী

প্রকাশ: ১০ জুলাই ২০২০     আপডেট: ১০ জুলাই ২০২০

হাসনাত আবদুল হাই

ছোট তরী

জন্ম :১৯ মে, ১৯৩৭

জহির রায়হান, আমাদের সবার জহির ভাইকে নিয়ে পঞ্চাশের দশকে একটা গল্প চালু ছিল; তিনি নাকি তার গল্পের সাধারণ মানুষের মুখের কথা শোনার জন্য রাস্তার পাশের চায়ের দোকানে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসে থাকতেন। উপযুক্ত সংলাপ শুনলেই সামনে রাখা নোটবইতে টুকে নিতেন। বেশ কয়েকদিন ওইভাবে লিখতে দেখে দোকানের লোকজন পুলিশের 'টিকটিকি' সন্দেহে তার ওপর চড়াও হয়েছিল। অনেক বলেকয়ে হেনস্তা হওয়ার হাত থেকে তিনি রক্ষা পেয়েছিলেন। আমি সেই পথে না গিয়ে শর্টকাট করে আমার পড়া অন্যের, বেশির ভাগই পশ্চিমবঙ্গের লেখকদের, গল্প-উপন্যাস থেকে উপমা, চিত্রকল্প, স্ল্যাং ইত্যাদি খাতায় টুকে রাখতাম যার একটা ধূসর নমুনা বহুকাল পর নিজেই মেলানোর চেষ্টা করলাম। আমি পড়তে পারছি, কেননা আমারই ত লেখা। কয়েকটা নমুনা দিই : ১. ঘেমো হাত; ২. ওর বড় দাপ; ৩. কোলপোছা ছেলে; ৪. বাসে লাদাই ভিড়; ৫. চৌপর দিন; ৬. টাউ টাউ করে চোখ মেলে; ৭. ভিতরে পোকা বিজবিজ করে এবং আরও এই রকম বর্ণনা।।কিন্তু শেষ পর্যন্ত এত পরিশ্রম করে সংগ্রহ করা 'মালামাল' 'আমার কোনো গল্প বা উপন্যাসে ব্যবহার করি নি, মনে হয়েছে এসব ত আমার সৃষ্টি নয়, সুতরাং অনধিকার চর্চা হবে। এই চিন্তা অবশ্য অস্বাভাবিক, কেননা কোনো লেখক নতুন একটা শব্দ বা উপমা তার লেখায় ব্যবহারের পর কপিরাইটের মতো সেটা আর তার মালিকানায় থাকে না, অন্য লেখক স্বীকৃতি ছাড়াই সেসব ব্যবহার করতে পারে। কিন্তু নিজের তৈরি ইমেজারি বা মেটাফর ব্যবহারে যে তৃপ্তি ও গর্ব, অন্যের শব্দ বা বাক্য গ্রহণ করা হলে তা পাওয়া যায় না।