ঘাস ফড়িং

ঘাস ফড়িং


বানান নিয়ে লড়াই বানান নিয়ে বড়াই

প্রকাশ: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০      

মারজান শাওয়াল রিজওয়ান

'ওই সাইনবোর্ডটা দেখছিস?'

রাফি শিউলিকে জিজ্ঞেস করে।

'হ্যাঁ, লেখা-এখানে লবন পাওয়া যায়।' শিউলি জবাব দেয়, 'তাই নাকি? আবার পড় তো।'

রাফি আর শিউলি দু'জন সহপাঠী। এবার নবম শ্রেণিতে পড়ে। ছোটবেলায় বেশি সখ্য না থাকলেও গত বছর বাংলা বানানের একটা প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে গিয়ে দু'জনের মধ্যে বেশ বন্ধুত্ব গড়ে উঠেছে। প্রায়ই বাংলা ভাষায় বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করে ওরা।

'ওহ, বুঝেছি। লবণ বানান মূর্ধন্য-ণ দিয়ে না লিখে দন্ত্য-ন দিয়ে লিখেছে, তাই তো?'

'আরও আছে। রাস্তার পরের দোকানটা দেখছিস? ওই যে- সুন্দর জামাকাপর পড়তে চাইলে আমাদের দোকানে আসুন। র-কে ড় আর ড়-কে র লিখেছে।'

রাফি বলে, 'ওই দেখ, কোচিংয়ের বিজ্ঞাপন।'

শিউলি দেয়ালের দিকে ইঙ্গিত করে বলে, 'দেখ, মেধাবিত্তি দেওয়া হয়।'

'বৃত্তি বানান ভুল।'

'তার পাশে দেখ, কম্পিউটারের দোকান।' শিউলি হাত দিয়ে দেখায়, ওই যে, 'নির্ভূলভাবে ফরম পূরণ করা হয়'।

'নির্ভুল বানানই ভুল।' রাফি বলে।

শিউলি যোগ করে, 'বই পড়াকে বলে বই পরা।'

'বর্গীয়-জ আর অন্তঃস্থ-যতে লাগায় গণ্ডগোল।'

'আহ্বানকে উচ্চারণ করে আহবান, যেখানে সঠিক হবে আওভান।'

'এখন না ভাষার মাস?' রাফি বিরক্তিতে চোখ উল্টে ফেলে।

'সবাই এই মাসে বাংলা ভাষার জন্য আত্মত্যাগ করা নিয়ে বড় বড় বক্তৃতা দেবে। তারপর বইপত্রে, পথেঘাটে ভুল বাংলা শিখবে আর লিখবে।'

'১৯৫২ সালে সালাম, বরকতরা আন্দোলন করেছিলেন বাংলার মর্যাদা রক্ষার্থে, আমাদের কি এখন ভুল বাংলা ব্যবহারের বিরুদ্ধে সঠিক বাংলা আন্দোলন গড়ে তোলা উচিত?'

শিউলি নিজের মনে বলে চলে- 'সবাই বলে ইংরেজি-নির্ভরতা আমাদের ভাষাজ্ঞানের অবনতির কারণ, কিন্তু আমার মনে হয় এর মূল কারণ অসচেতনতা আর সদিচ্ছার অভাব।'

'ঠিক তাই।' রাফি মাথা নাড়ে।

হ নবম শ্রেণি, হলিক্রস উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়, কলাবাগান, ঢাকা