ঘাস ফড়িং

ঘাস ফড়িং


ছড়া-কবিতা

প্রকাশ: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০      

আ খ তা র হু সে ন

হতে যদি চাও

দ্যাখো মা

রুনুটা না

ভীষণ রকম বোকা

তার নেইকো লেখা-জোখা

ও-না ওর

খেলনা ঘোড়ায় চড়ে

চায় যেতে চায়

দূর সে তেপান্তরে।

কাঠের ঘোড়া ছুটতে কি আর পারে?

তাই কখনো হয়!

ওতো আর

সত্যিকারের নয়।



তাই শুনে মা

রুনু কি কয় জানো?

বলে,

'আমি রাজপুত্তুর

এই খেলনা ঘোড়ায় চড়েই

মারতে যাব দত্যি এবং দানো।'



তাইতো ওকে বুঝিয়ে বলেছিলাম,

সত্যিকারের রাজপুত্তুর

হতেই যদি চাও

সত্যিকারের একটা ঘোড়া

সঙ্গী করে নাও।

আমি ঠিক বলিনি মা?



কাঠের ঘোড়া নিয়ে কেবল

খেলা করাই চলে

অভিযানে যায় কি যাওয়া

খেলনা ঘোড়া হলে?



মার জন্য



আমি কত্তো কিছু আঁকি

পালতোলা নাও

সবুজ সোনা পাখি

ঢেউ ছল ছল নদী

বইছে নিরবধি।

আঁকি আমি

গাছপালা, ফুল

ওই যে পথের বাঁক

প্রজাপতি

কালো মেঘের ঝাঁক।

আঁকি আরও

বাঁশের সাঁকো

দূরের সে ঘর-বাড়ি

কোনটা আঁকি, কোনটাকে যে ছাড়ি!

আঁকি আমি

রোদের আলো

ঘাস ও শিশিরমালা

ফলেভরা গাছেরই ডালপালা।



এত্তো কিছু আঁকার পরও

শান্তি নেইকো মনে

আঁকতে যা চাই

হয় না আঁকা

অনেক সযতনে।

কেবল তখন

হয় যে মনে

সব এঁকেছি

কাগজ-তুলি

আস্তে তুলে রাখি

মায়ের মুখটি যখন আঁকি।