ছড়া-কবিতা

ঘুরতে ঘুরতে হাওয়াই মিঠাই

প্রকাশ: ৩০ জুলাই ২০১৯      

সা র ও য়া র - উ ল - ই স লা ম

সা র ও য়া র - উ ল - ই স লা ম

হাওয়াই মিঠাই

ঘুরতে ঘুরতে হাওয়াই মিঠাই

আহারে কী স্বাদ ছিল!

মুখে দিতেই শেষ হয়ে যায়

তাই তো খুকু কাঁদছিল।





গ্রাম কোথায়!



আমাদের গ্রামটাকে

খেয়েছে শহর

হাটবাজারেও জ্যাম

গাড়ির বহর।



ধাঁধা



কাকের বাসায় কোকিল, নাকি

কোকিল কাকের বাসায়-

সময় হলে সুযোগ খোঁজে

ডিম পাড়বার আশায়?



অট্টালিকা



অট্টালিকা দিচ্ছে ঢেকে

পাশের ছোট বাড়ি

সূর্য বলে, আলোর জন্য

কী আর করতে পারি?



খো র শে দ আ ল ম ন য় ন

বর্ষা এলেই



চালতা তলায় আলতা পরে

পারুল খুকু সাজতো

বর্ষা এলেই রুম ঝুম ঝুম

খুকুর নূপুর বাজতো।



খেলতো যখন দাওয়ায় বসে

জড়িয়ে ধূলি অঙ্গে

বলতো কথা হাত বাড়িয়ে

দোয়েল পাখির সঙ্গে।



পারুল নামের সেই খুকিটা

আজ আর ফিরে আসে না

মায়ের সাথে তারার মতো

মিটমিটিয়ে হাসে না।



ভাইয়া যখন যায় শহরে

আর ধরে না বায়না

আনতে হবে পুতুল বউয়ের

রেশমি চুড়ি আয়না;



আসবে না আর ফিরে সে যে

যতই ডাকো তাকে

হারিয়ে গেছে সেই খুকিটা

মেঘনা নদীর বাঁকে।



গি য়া স উ দ্দি ন রূ প ম

বিষ্টি ভেজা গাঁ



বিষ্টি ভেজা গাঁ

কোলা ব্যাঙের ছা-

ডাকছে ঘ্যাঙর ঘ্যাং...

চলতে পথে পিছলে কারও

ভাঙছে জোড়া ঠ্যাং।



বিষ্টি ভেজা গাঁ

একলা বসে মা-

রাঁধছে পুঁটি-কৈ।

ঝোল মাখা ভাত খেতে সবাই

আয় না তোরা, সই!



বিষ্টি ভেজা গাঁ

রঙিন পালের না'

ছলাৎ ছলাৎ ঢেউ

মাঝ নদীতে কাটতে সাঁতার

আসবি তোরা কেউ?



বিষ্টি ভেজা গাঁ

তাইরে নাইরে না...

নাই রে ভাবনা লেশ

ঘর ছেড়ে আজ বাইরে এসে

করবো মজা বেশ!

পরবর্তী খবর পড়ুন : ইড়িং বিড়িং তিড়িং বই

অন্যান্য