ডাক্তারবাড়ি

ডাক্তারবাড়ি


দিনে কয়েকবার হাত ধোবেন

প্রকাশ: ১১ জুলাই ২০২০      

ডা. তারিক হাসান

করোনাভাইরাসের (কভিড-১৯) মতো শ্বাসতন্ত্রে আক্রমণকারী ভাইরাসগুলো তখনই ছড়ায়, যখন তা চোখ, নাক বা গলার শ্নেষ্মার মধ্য দিয়ে শরীরে প্রবেশ করে। অধিকাংশ ক্ষেত্রে তা হাতের মাধ্যমেই হয়ে থাকে। ভাইরাসটি একজন থেকে আরেকজনে সংক্রমণের প্রধান মাধ্যমও হাত। দিনে অন্তত ছয় থেকে ১০ বার ভালো করে হাত ধুলে করোনাভাইরাসের মতো জীবাণুর সংক্রমণ কমানো সম্ভব বলে ব্রিটেনের একটি গবেষণায় বলা হয়েছে।

বর্তমান মহামারির জন্য দায়ী যে মারাত্মক কভিড নাইনটিন জীবাণু, গঠনগত দিক দিয়ে এরকম জীবাণুর ওপর ২০০৬ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত চালানো গবেষণা থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

করোনাভাইরাস যে ভাইরাস গোষ্ঠীর মধ্যে পড়ে, তার সংক্রমণ থেকে সাধারণত সাধারণ সর্দিজ্বরের মতো উপসর্গ হয়।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, বর্তমান ভাইরাসসহ এ ধরনের সব করোনাভাইরাস সাবান ও পানি দিয়ে হাত ধুলে মরে যায়।

প্রতি শীতকালে মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিল ইংল্যান্ডে যারা করোনাভাইরাস সংক্রমণ থেকে সর্দিজ্বরে আক্রান্ত হন, তাদের ওপর এই হাত ধোয়ার বিষয়টি নিয়ে পরীক্ষা চালায়।

তাদের গবেষণার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে ওয়েলকম ওপেন রিসার্চ সাময়িকীতে এবং দেখা গেছে, যে এক হাজার ৬৬৩ জন এই গবেষণায় অংশ নিয়েছিলেন, দিনে ছয়বার করে হাত ধোয়ার কারণে শীতকালীন ওই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা তাদের ক্ষেত্রে অনেক কম ছিল।

তবে ১০ বারের বেশি হাত ধুলে যে সংক্রমণের ঝুঁকি আরও কমে যাবে, এমন কোনো তথ্যপ্রমাণ তারা গবেষণায় পাননি।

গবেষণা প্রতিবেদনের লেখক লন্ডনের ইউনিভার্সিটি কলেজের ড. সারা বিল বলেন, আপনার কোনো উপসর্গ থাক বা না থাক, হাত সবসময় স্বাস্থ্যসম্মতভাবে পরিষ্কার রাখার অভ্যাস করা উচিত।

্তুভালো করে হাত ধুলে সেটা আপনাকে সুরক্ষা দেবে এবং আশপাশের মানুষের আপনার থেকে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকিও কমবে।

ইংল্যান্ডের জনস্বাস্থ্য বিভাগের একজন কর্মকর্তা বলেন, নিযমিত অন্তত ২০ সেকেন্ড ধরে হাত ধোয়া করোনাভাইরাস ছডানোর ঝুঁকি কমানোর সবচেয়ে ভালো উপায়, বিশেষ করে নাক ঝাড়া, এবং হাঁচি ও কাশি দেওয়ার পর। খাওয়া এবং রান্না করার আগেও হাত ভালো করে ধোয়া জরুরি।

ইংল্যান্ডের জনস্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, বাইরে বেরোনোর পর অথবা গণপরিবহন ব্যবহার করার পরও হাত ভালো করে ধোয়ার অভ্যাস গড়ে তোলা উচিত।