শুধু তোমাকেই

প্রকাশ: ০৩ আগস্ট ২০১৯      

তাসনিম নিদ্রা

প্রিয় বলে শুরু করব না। কারণ তুমি তার চেয়েও বেশি কিছু! দেখা হওয়ার দুই বছর আগে ফেসবুকে যখন প্রথম তোমার সঙ্গে কথা হয়, কল্পনাতেও ভাবিনি তুমিই হবে আমার ভালোবাসার মানুষ। কীভাবে দুটি বছর এমন সোশ্যাল ফ্রেন্ড হয়েই রইলে? আরও আগে কেন দেখা হয়নি?

অবশ্য সে দোষ তোমাকেইবা দিই কী করে! আমিও তো এত মানুষের ভিড়ে বুঝতেই পারিনি।

আমি কিন্তু প্রথম দেখাতেই প্রেমে পড়েছিলাম। তোমার চোখ আর হাসি দেখে। ছেলেদের চোখে এত মায়া থাকতে পারে, আগে কখনও মনে হয়নি। সবার কেমন ব্যক্তিত্ব আর গাম্ভীর্যভরা দৃষ্টি। আর তোমার হাসিটা? যেন মধু না খেয়েও মিষ্টি স্বাদটা মনের ভেতরে লাগে। ভেতরটা কেমন যেন হু হু করে ওঠে। তোমাকে এভাবে কখনোই বলা হয়নি, কিন্তু আজ বলছি। তোমার হাসির আর চোখের প্রেমে পড়েছি আমি। কীভাবে বলব বলো? খুব কমই শুনেছি প্রেমিকা তার প্রেমিকের রূপে মুগ্ধ হয়ে হয়ে বলতে, কিন্তু আমি যে আসলেই মুগ্ধ! যত রাগ-জিদ-কষ্ট... যাই হোক না কেন, সেটা তোমার কাছে এলেই ফিকে হয়ে যায়। ভালোবাসি তোমায়, খুব সকালে আধো ঘুম চোখে কিংবা দুপুরের কড়া রোদ্দুরে অফিস যাওয়ার পথে।

ভালোবাসি তোমায়, ক্লান্ত চেহারায় কিংবা শান্ত মধ্যরাতে। সব সময় ভালোবাসি।

দেখো কী সুন্দর করে ঘুমিয়ে আছো তুমি, আর তোমার পাশে বসেই লিখছি তোমার কাছে। লিখব না কেন বলো? আমাদের বিবাহিত জীবনের প্রথম ভালোবাসা দিবস যে চলে এসেছে! তাই তো স্মৃতিময় করে রাখতে আমার এই চিঠি। এমন আরও শত বসন্ত আর ভালোবাসা দিবস আসুক আমার জীবনে, শুধু তোমারই সঙ্গে। তুমি ঘুমাও আরও পরিতৃপ্তিতে, কোনোদিন খুঁজে পেলে না হয় পড়ে পড়ে মুচকি হাসবে। সেই হাসিটা ভেবেও কেমন বলতে ইচ্ছে হচ্ছে, ভালোবাসি, অনেক অনেক বেশি, সারাজীবন বাসব। শুধু তোমাকেই।

বনশ্রী, ঢাকা

পরবর্তী খবর পড়ুন : আনন্দ বেদনার শ্নোক

অন্যান্য