প্রথম ডাকটা আমিই পাই

প্রকাশ: ২৮ জুলাই ২০১৯      

মাধব বৈদ্যান শঙ্করণ

প্রথম যখন আমাকে ডাকা হয়েছিল, তখন আমি এত অবাক ও উচ্ছ্বসিত হয়ে গিয়েছিলাম যে, তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না। সত্যি কথা বলতে কী, আমি বিশ্বাস করতে পারছিলাম না যে, আমার গলায় এই ব্রোঞ্জপদক ঝোলানো হচ্ছে, কারণ প্রথম এমন কোনো প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে তাতেই সাফল্য। আমি বলব না যে, আমার পরীক্ষাগুলো তেমন আহামরি ভালো হয়েছিল, ব্যবহারিক ও লিখিত দুটোই, তাই আমি সত্যিই এটার থেকে বেশি প্রত্যাশা করিনি। কিন্তু মজার ব্যাপার হলো, আমাকে দিয়েই থামল না। আমার পরেই ডাকে অদ্বিতীয়কে। আমি কখনোই তার সঙ্গে ও পরে, রাফসানের সঙ্গে মেডেল গ্রহণ করার সেই গর্বের সময়টা ভুলব না। তবে এই পুরস্কারই সব ছিল না। নতুন মানুষ, নতুন ভিনদেশি বন্ধুদের সঙ্গে কাটানো সময় ছিল আমার জন্য অপূর্ব। তাদের অনেকের গলার ওপর সব ধরনের পদক নিয়ে পদচারণা, সবাই তাদের সাফল্য নিয়ে সমানভাবে খুশি। তাদের সাফল্য দেখে আমরাও আনন্দিত হই ও তাদের অভিনন্দন জানাই এবং আমাদের সবার কঠোর পরিশ্রম ও দীর্ঘ কয়েক মাসের তপস্যা শেষমেশ সুফলে পরিণত হতে দেখে গর্ববোধ করি।

পরীক্ষার শুরুতেই সেই ভয়, ব্যাকুলতা ও উত্তেজনা। আমার দলের কেউই আসলে জানতাম না পরীক্ষার ফল কী হতে পারে। তবে আমরা সফল হয়েছি। এটাই গর্বের বিষয়। আশা করি সামনে আমরা আরও ভালো করব। তবে অবশ্যই তা এবারের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে।

পরবর্তী খবর পড়ুন : সাত দিনের গল্প!

অন্যান্য