আলোর পথযাত্রী

আলোর পথযাত্রী


সুন্দর মানেই আত্মবিশ্বাসী

বুদ্ধিরাজ

প্রকাশ: ১৪ জুলাই ২০১৯      

শাহনেওয়াজ টিটু

সুন্দর মানেই আত্মবিশ্বাসী

বন্ধুমুখর সত্যিই সুন্দর দিন...- মডেল : সাজিদ সুহান, মেহের নিগার ও সাকির; ছবি : রাজিব পাল

সুন্দরের সংজ্ঞা কেউ দেন শারীরিক সৌন্দর্য দেখে আবার কারও কাছে মনের সৌন্দর্যই প্রকৃত সত্য, সত্যি সুন্দর। তাই সুন্দরের মধ্যেই প্রকাশ পায় রকমফের। কাউকে আমরা বলি সুন্দর, কাউকে অনেক সুন্দর আবার কাউকে অসাধারণ সুন্দর। পয়েন্টগুলো মিলিয়ে দেখতে পারেন-

সুন্দর মানুষ একা : সুন্দর মানুষ সহজেই সবার চোখে পড়ে আর সত্যিই সুন্দর মানুষ চিরস্থায়ীভাবে মানুষের মনে গেঁথে যায়। কারণ সুন্দর মানুষরা দেখতেই সুন্দর। তাদের সাধারণত তেমন আর কোনো গুণ থাকে না। কিন্তু সত্যিই সুন্দর মানুষের এমন কিছু ব্যাপার থাকে, যা কেউ অস্বীকার করতে পারে না। তাই সে মানুষের মনে আসন লাভ করে।

সত্যিই সুন্দর মানুষ ব্যক্তিস্বাতন্ত্র্য নয়

একজন সুন্দর মানুষ নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত থাকে ম্যাগাজিন আর পত্রিকার পাতায় নিজেকে প্রকাশ করতে, অন্যদিকে একজন সত্যিই সুন্দর মানুষ বিশ্বে তার মনের ভাবনা আর স্বপ্নগুলো ছড়িয়ে দিতে ব্যস্ত থাকে। এদিক থেকে সত্যি সুন্দর মানুষ একা। কিন্তু একটা সময় সে সবার মনে স্থান করে নেয়।

ছয় বছরের মোৎসার্ট : মোৎসার্ট ৬ বছর বয়সে গান কম্পোজিশন শুরু করেন। আর আজ তিন শতাব্দী পরও মানুষ তাকে ভোলেনি। বরং লাখ লাখ মানুষ আজও মুগ্ধ হয়ে মোৎসার্ট শোনে আর মোহিত হয়। সত্যি সুন্দর মানুষ মোৎসার্টের কম্পোজিশনের মতোই। শত বছর পরও মানুষ তা মনে রাখে অকৃপণভাবে।

নিজেকে নিয়ে ব্যস্ততা : সুন্দর মানুষ নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত থাকে। কারণ তারা স্বার্থপর। কিন্তু সত্যি সুন্দর মানুষ নিজেকে উজাড় করে পরার্থে। মুখের হাসি শেয়ার করে বন্ধুর চোখের জল মুছে দিতে। নিজের তৈরি খাবার অন্যের মুখে তুলে দেয় অনায়াসে। বুকে আগলে রাখে দুঃখী মানুষকে। মনের ভেতর থেকেই তাদের জন্য মানুষ ভালোবাসা অনুভব করে।

ব্যস্ত থাকে জ্ঞান : সুন্দর মানুষ ব্যস্ত থাকে তার নিজের দেহের সৌন্দর্য নিয়ে, শরীরের গঠন নিয়ে। অথচ এগুলো যে কোনো সময় নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই সত্যি সুন্দর মানুষ ব্যস্ত থাকে তার জ্ঞান, জানার পরিধি, অভিজ্ঞতা ইত্যাদি নিয়ে। কারণ শারীরিক সৌন্দর্য নষ্ট হয়ে যায় শিগগিরই; কিন্তু মনের সৌন্দর্য আজীবন এমনকি মৃত্যুর পরও অটুট থাকে। তাই সুন্দর মানুষ সুন্দর নয়; কিন্তু সত্যি সুন্দর মানুষ আত্মবিশ্বাসী তার ব্যাপারে।

রঙ বদলানোর খেলা : সুন্দর মানুষ শিশু থেকে কিশোর হয়, কিশোর থেকে প্রাপ্তবয়স্ক হয়, যৌবনপ্রাপ্ত হয়, বয়স্ক হয়, বৃদ্ধ হয় আর তার সঙ্গে সঙ্গে তার সৌন্দর্যের তারতম্য ঘটতে থাকে। কিন্তু সত্যি সুন্দর মানুষ সবসময়ই সুন্দর। তার সৌন্দর্য দিন দিন কমে না বরং বাড়তেই থাকে। তাই সত্যি সুন্দর মানুষ আজীবনের জন্যই সুন্দর আর এটা মানুষের মনের ভেতর স্থান করে নেয়।

জন্মসূত্রে : জন্মসূত্রে সুন্দর মানুষ হওয়া যায়। কিন্তু সত্যি সুন্দর মানুষ হতে হলে আপনাকে তা অর্জন করতে হবে। অর্থাৎ সুন্দর মানুষ কেউ হবে কী হবে না সেটা তার নিজের ওপর নির্ভর করে না। কিন্তু সত্যি সুন্দর মানুষ হতে হলে নিজেকে তৈরি করে নিতে হয়, নেওয়া যায়, যা মানুষের মনে প্রভাব ফেলে তার কাজের মাধ্যমে।

সুন্দরের ভয় : একজন সুন্দর মানুষ সারাজীবন ভয়ে থাকে এই বুঝি তার সৌন্দর্য হারিয়ে গেল জরাক্রান্ত হয়ে বা অন্য কোনোভাবে। কিন্তু সত্যি সুন্দর মানুষ বরং বেপরোয়া নিজেকে নিয়ে। কারণ সে জানে তার সৌন্দর্য হারানোর নয়। বরং যতই বয়স বাড়বে তার সৌন্দর্য বাড়তেই থাকবে। যদিও সে তার সৌন্দর্য নিয়ে কখনোই ব্যস্ত নয়। তার সৌন্দর্য বাড়ার এটাও একটা কারণ।

আর সুন্দর মানুষ ব্যস্ত থাকে নিজের শারীরিক সৌন্দর্য নিয়ে, যদিও সে জানে এটা চিরস্থায়ী নয় আর তার সৌন্দর্য সবার কাছে গ্রহণযোগ্যও নয়। কিংবা আমরা তো জানি, একজন মানুষ অনেক সুন্দর হলেও তাকে আমার ভালো নাও লাগতে পারে, কারণ সৌন্দর্য আপেক্ষিক। হয়তো আমার ভাবনার সুন্দর অন্যরকম। কিন্তু সত্যি সুন্দরের ব্যাপারে কোনো আপেক্ষিকতা নেই। এটা ধ্রুব সত্য। সব মানুষই সত্যি সুন্দর মানুষকে ভালোবাসতে চায়, ভালোবাসে আর নিজের মনের গহিন কোণে স্থান করে রাখে। তো এখন আমাদের ভাবনার বিষয়- আপনি কোনটা চান? সুন্দর হতে নাকি সুন্দরমনা হতে?