যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছেন, রাশিয়া ইউক্রেনে আক্রমণ করবে। তবে এর জন্য তাদের 'গুরুতর ও প্রিয়' মূল্য দিতে হবে। প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার এক বছর পূর্তিতে স্থানীয় সময় বুধবার হোয়াইট হাউসে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এমন আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি। তার এমন ধারণাকে ষড়যন্ত্র উল্লেখ প্রত্যাখ্যান করেছে মস্কো। এমন প্রেক্ষাপটে সংকট মোকাবিলায় রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুক্তফ্রন্ট গঠনের তাগিদ দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন। আসন্ন সংঘাত রোধে কূটনৈতিক প্রচেষ্টাও অব্যাহত রেখেছে উভয়পক্ষ। এর অংশ হিসেবে আজ শুক্রবার সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন ব্লিংকেন।

বাইডেন বলেছেন, তিনি মনে করেন, রাশিয়া ইউক্রেনে হামলা চালাবে। তবে এর জন্য মস্কোকে চরম পরিণতি ভোগ করতে হবে। পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট এও স্বীকার করেছেন, 'ছোট ধরনের হামলা' হলে কীভাবে মোকাবিলা করা হবে সে বিষয়ে এখনও ন্যাটো দ্বিধাবিভক্ত রয়েছে।

রুশ প্রেসিডেন্ট ভদ্মাদিমির পুতিনের হামলা পরিকল্পনার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে বাইডেন বলেন, 'আমি নিশ্চিত নই, তিনি নিশ্চিত কী করতে যাচ্ছেন। আমার ধারণা, তিনি হামলা করবেন। তাকে কিছু করতে হবে।' তিনি আরও বলেন, পূর্ণ মাত্রার হামলা হলে তা ইউক্রেন সীমান্তের বাইরে ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি রয়েছে। যার পরিণতিতে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর 'যুদ্ধ ও শান্তি'র ক্ষেত্রে সবচেয়ে পরিণতিমূলক আক্রমণ হবে। এটি নিয়ন্ত্রণের বাইরেও যেতে পারে।

তবে বাইডেনের 'ছোট ধরনের হামলা' সংবলিত শব্দচয়ন নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেছে ইউক্রেন। কিয়েভের এক কর্মকর্তা বলেছেন, এর মাধ্যমে হামলার সবুজ সংকেত পেতে পারেন পুতিন।

বাইডেনের বক্তব্যের পর বিষয়টি ব্যাখ্যা করেন তার মুখপাত্র জেন সাকি। তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, 'রুশ প্রেসিডেন্টকে বাইডেন পরিস্কার করেছেন- ইউক্রেন সীমান্তের ওপারে রাশিয়া কোনো ধরনের সামরিক তৎপরতা চালালে নতুন আগ্রাসন হিসেবে দেখা হবে। এর প্রতিক্রিয়ায় দ্রুত, ভয়াবহ ও তাৎক্ষণিক জবাব দেবে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা।' নিজেদের উস্কানির ষড়যন্ত্রকে গোপন করতে বাইডেন এমন দাবি করেছেন বলে মন্তব্য করেছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাকারোভা। তিনি বলেন, 'ইউক্রেনে রাশিয়া আক্রমণের পরিকল্পনা করছে- এমন গুজব তৈরিতে ব্যস্ত কিয়েভ ও পশ্চিমা সংবাদমাধ্যমগুলো এবং কর্মকর্তারা। এভাবে তারা এটি তৈরি করছে। আমরা নিশ্চিত, এটি তৈরির উদ্দেশ্য পূর্ণমাত্রার উস্কানিমূলক পরিস্থিতির প্রস্তুতি।' তিনি বাইডেনের দাবিকে একেবারেই বায়বীয় বলে উড়িয়ে দিয়েছেন।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে রাশিয়াকে মোকাবিলা করতে ইউরোপীয় মিত্র বিশেষ করে ফ্রান্স ও জার্মানিকে যুক্তফ্রন্ট গঠনের তাগিদ দিয়েছেন ব্লিংকেন। তিনি গতকাল জার্মানি সফর করেছেন। সেখানে যুক্তরাজ্যের মধ্যপ্রাচ্য, উত্তর আফ্রিকা ও উত্তর আমেরিকাবিষয়ক পররাষ্ট্রমন্ত্রী, ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। আলোচনায় ইউক্রেনের পক্ষে ঐক্যবদ্ধ থেকে সংকট মোকাবিলায় গুরুত্ব দেন তিনি। এদিন পুতিনকে কূটনৈতিক পথে ইউক্রেন সংকট মোকাবিলার আহ্বান জানান ব্লিংকেন। পরে আজ জেনেভায় রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করবেন ব্লিংকেন। খবর দ্য গার্ডিয়ান ও এএফপির।

মন্তব্য করুন