ভারতীয় হিসেবে গর্বিত নই :অমর্ত্য সেন

প্রকাশ: ২১ আগস্ট ২০১৯      

সমকাল ডেস্ক

গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসেবে বিশ্বজোড়া যে সুনাম ছিল, নরেন্দ্র মোদি সরকারের আমলে ভারত তা হারিয়ে ফেলেছে। ভারত এখন আর গণতান্ত্রিক দেশ নয়, বরং ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক আমলের আদলে কাশ্মীরকে একটি পদাশ্রিত মেরুদণ্ডহীন ভূখণ্ডে পরিণত করেছে। ভারতের প্রখ্যাত বাঙালি নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার এবং এর পর শান্তি স্থাপনের নামে যে দমনমূলক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, তার সমালোচনা করতে গিয়ে এসব কথা বলেন। সোমবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির সঙ্গে সাক্ষাৎকারে ৮৫ বছর বয়সী এই অর্থনীতিবিদ বলেন, ভারতীয় হিসেবে আমি আর গর্ববোধ করি না। কারণ ভারত তার সে মর্যাদা হারিয়ে ফেলেছে।

জম্মু-কাশ্মীরে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার ও ব্যাপক সামরিক উপস্থিতির কারণ হিসেবে মোদি সরকার প্রাণহানি ঠেকানোর কথা বললেও নোবেলজয়ী ভারতীয় অর্থনীতিবিদ ড. অমর্ত্য সেন একে দেখছেন ঔপনিবেশিক যুগের অজুহাত হিসেবে। তিনি মন্তব্য করেছেন, ব্রিটিশরাও তাদের শাসনক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে একই ধরনের অজুহাত ব্যবহার করত। গত ৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা বিলোপের পর সেখানকার বিপুল সংখ্যক রাজনীতিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। নরেন্দ্র মোদি সরকার বলছে, 'প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা' হিসেবে এটা করা হচ্ছে। প্রাণহানি ঠেকাতেই এই পদক্ষেপ। তবে অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন বলেছেন, এই পদক্ষেপ সর্বোত্তম ঔপনিবেশিক অজুহাত। ব্রিটিশরা এভাবেই ২০০ বছর ধরে দেশ শাসন করেছিল।

এতদিন কাশ্মীর রাজ্যটির নিজস্ব সংবিধান, পতাকা, দণ্ডবিধি ছিল। তা বিলোপ করেছে মোদি সরকার। এ নিয়ে অমর্ত্য সেন বলেন, 'জম্মু ও কাশ্মীরের জনগণকে কিছু সিদ্ধান্ত নিতে দেওয়া উচিত। এটি এমন একটি বিষয়, যে ক্ষেত্রে কাশ্মীরিদের আইনসঙ্গত দৃষ্টিকোণ রয়েছে, কারণ এটি তাদের জমি।'