ঈশ্বরদীতে সনাতন ধর্মের পাঁচজনকে পিটিয়ে আহত করেছে দুর্বৃত্তরা। রোববার রাতে দরিনারিচা হরিজন কলোনি দুর্গামন্দিরের সামনে এ ঘটনা ঘটে। সোমবার এ ঘটনায় ঈশ্বরদী থানায় আহতদের পক্ষে টুনি চৌধুরী ৯ জনের নাম উল্লেখ করে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, রোববার সন্ধ্যায় সাঁড়া ইউনিয়নের পদ্মা নদীর ৫ নম্বর ঘাটে শারদীয় দুর্গোৎসবের ধর্মীয় আয়োজন শেষে বাড়ি ফিরছিলেন কাঁকন চৌধুরী, টুনি চৌধুরীসহ কয়েকজন। তারা হরিজন কলোনি দুর্গামন্দিরের সামনে এলে আট থেকে ১০ যুবক মোটরসাইকেলে এসে তাদের পথ আটকায়। কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই তাদের ওপর হামলা চালিয়ে পিটিয়ে আহত করে তারা।

এ সময় প্রতিবেশী সুজন, অমৃত, সুমিত, সীমাসহ কয়েকজন এগিয়ে এলে তাদেরও মারধর করে মোটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। রক্তাক্ত অবস্থায় আহতদের উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়। আহতরা অভিযোগ করেন, তাদের কাছ থেকে টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে গেছে হামলাকারীরা।

আহত কাঁকন চৌধুরী জানান, বিজয়া দশমীর দিন তাদের কয়েকজন নৌকার ওপরে ঢোল বাজাচ্ছিলেন। সে সময় স্থানীয় পাঁচ-ছয়জন মুসলিম যুবক তাদের কাছ থেকে ঢোল নিয়ে বাজাতে চায়। ঢোল না দেওয়ার কারণে ক্ষুব্ধ হয়ে তারা দেখে নেওয়ার হুমকি দিয়ে চলে যায়। ধারণা করা হচ্ছে, সে ঘটনার কারণেই এ হামলা চালানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন