আজ ১২ মে পাবনার সুজানগরের সাতবাড়িয়া গণহত্যা দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী সাতবাড়িয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের নিরীহ নিরপরাধ মানুষের ওপর বর্বরোচিত হামলা চালিয়ে গণহত্যা করে।

পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী ১৯৭১ সালের এই দিনে পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী ওই ইউনিয়নের কুড়িপাড়া, নিশ্চিন্তপুর, কাচুরী, তারাবাড়িয়া, ফকিৎপুর, সাতবাড়িয়া, নারুহাটি, সিন্দুরপুর, হরিরামপুর, ভাটপাড়া, বর্তমানে পদ্মা নদীতে বিলীন হওয়া কন্দর্পপুর, গুপিনপুরসহ ১৫-২০টি গ্রামে গণহত্যা চালায়। প্রায় ৫০০-৬০০ নারী-পুরুষকে নৃশংসভাবে হত্যা করে তারা। তাদের মধ্যে ২০০টি লাশ পার্শ্ববর্তী পদ্মায় ভাসিয়ে দেওয়া হয়। ২০১৩ সালে সরকার মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় গণহত্যা ও মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের স্মরণে প্রায় কোটি টাকা ব্যয়ে সাতবাড়িয়া ডিগ্রি কলেজ মাঠে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ করে।

ওই কলেজের অধ্যক্ষ আবদুল বাছেত বলেন, প্রায় ৫ বছর আগে স্মৃতিস্তম্ভটি নির্মাণ করা হলেও বর্তমানে এটির রঙ ও লাইটিং ব্যবস্থা নষ্ট হয়ে গেছে, পাশাপাশি সমীনা প্রাচীর না থাকায় অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে আছে।

পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওহাব জানান, প্রতিবছরের মতো এ বছরও দিবসটির স্মরণে শোক র‌্যালি, আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন