মুখোমুখি জ্যাক মা ও ইলন মাস্ক

প্রকাশ: ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

 মুখোমুখি জ্যাক মা ও ইলন মাস্ক

চীনের সাংহাইতে অনুষ্ঠিত বিশ্ব কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা সম্মেলনে বিতর্কে অংশ নেন জ্যাক মা ও ইলন মাস্ক

জ্যাক মা বাজি ধরছেন মানুষ যন্ত্রকে নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারে বিজয়ী হবে, যেখানে ইলন মাস্ক আশঙ্কা করছেন পৃথিবী একদিন বসবাসের অযোগ্য কিংবা ধ্বংস হবে। ফলে মানুষকে টিকে থাকতে বিকল্প বাসস্থানের খোঁজ করতে হবে। অসাধারণ এই বিতর্কের চুম্বক অংশ পাঠকদের জন্য তুলে ধরেছেন তানভীর সিদ্দিক টিপু

ইলন মাস্ক এবং জ্যাক মা। তথ্যপ্রযুক্তি বিশ্বের দুই শীর্ষ ধনকুবের এবং জীবন্ত কিংবদন্তি। মহাকাশ ভ্রমণ সংস্থা স্পেসএক্স এবং বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা টেসলা মোটরসের প্রধান নির্বাহী, পেপ্যালের সহপ্রতিষ্ঠাতা ইলন রিভ মাস্ক যিনি ইলন মাস্ক নামে সমধিক পরিচিতি। মার্কিন এই প্রকৌশলী মঙ্গলগ্রহে বসতি স্থাপনে বিশেষ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছেন। পাশাপাশি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা গবেষণায় চালু করেছেন ওপেনএআই। জ্যাক মা চীন ভিত্তিক ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম আলিবাবা এবং অর্থ লেনদেন প্লাটফর্ম আলিপে'র প্রতিষ্ঠাতা। গত বৃহস্পতিবার চীনের সাংহাইতে অনুষ্ঠিত বিশ্ব কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা সম্মেলনে মুখোমুখি হন বিশ্বের এই দুই শীর্ষ উদ্যোক্তা। প্রায় ৪৫ মিনিটের সেশনে তারা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ভবিষ্যৎ, মঙ্গল গ্রহে বসবাসের প্রয়োজনীয়তা এবং শিক্ষার ভবিষ্যৎ সম্পর্কিত বিষয়গুলো নিয়ে আলাপ করেন।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা

মাস্ক :মানুষ আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স তথা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার (এআই) সক্ষমতাকে ছোট করে দেখে। অনেকে হয়তো ভাবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা হবে আগামীর স্মার্ট মানব! তবে আপনি যে বুদ্ধিমান মানুষকে জানেন এটি তার চেয়ে বেশি স্মার্ট হয়ে উঠবে।

জ্যাক মা : আমি জীবনে কখনও বলিনি যে, মানুষ মেশিন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হবে, এটি অসম্ভব... মানুষ কখনই এমন কিছু তৈরি করতে পারে না, যা মানুষের চেয়ে স্মার্ট।

মাস্ক : আমি একেবারেই একমত নই। মানুষের সবচেয়ে বড় ভুল হিসেবে যেটা আমি দেখি তা হলো, তারা নিজেদের অনেক স্মার্ট মনে করে।

জ্যাক মা : আমার মতে, কম্পিউটারগুলো আরও বুদ্ধিমান হতে পারে, মানুষ অনেক বেশি স্মার্ট।

মাস্ক : অবশ্যই না।

জ্যাক মা : আমি বেশ আশাবাদী এবং আমি মনে করি না যে, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা একটা হুমকি। আমি মনে করি না কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ভয়ঙ্কর কিছু, তবে মানুষ এটি শেখার জন্য যথেষ্ট স্মার্ট... আমরা যারা রাস্তার রাজা- আমরা কখনই এটা নিয়ে ভীত নই।

মাস্ক :আমি মানুষ সম্পর্কে জানি না, এটি বিখ্যাত ব্যক্তিদের শেষ কথাগুলোর মতো... আপনি যদি ৪০ বছর আগে ফিরে যান, ৫০ বছর আগে হয়তো, তখন পং (ভিডিও গেম) ছিল- এটি ছিল মাত্র দুটি আয়তক্ষেত্র এবং একটি বর্গক্ষেত্র। এখন আপনি ৪০টি বাস্তবসম্মত রিয়েল টাইম সিমুলেশন পেয়েছেন, যা লাখ লাখ মানুষ একই সঙ্গে খেলছে। আপনি যদি এই যে উন্নতি এই হারটাকে ধরে নেন, তবে আমি বোঝাতে চাইছি এই গেমগুলো ৫০ বছর পরে কোন অবস্থায় যাবে। আপনি পার্থক্য বলতে সক্ষম হবেন না। হয় এটা হবে অথবা সভ্যতার অবসান হবে।

জ্যাক মা : বুদ্ধিমানরা জ্ঞান দ্বারা চালিত, স্মার্টরা অভিজ্ঞতা দ্বারা চালিত। কম্পিউটার মানুষের তৈরি অনেক বুদ্ধিমান সরঞ্জামের একটি মাত্র। কম্পিউটার বুদ্ধিমান তবে আরও অনেক যন্ত্র/ডিভাইস মানুষ তৈরি করবে, যা কম্পিউটারের চেয়ে অনেক বেশি বুদ্ধিমান হবে।

মাস্ক : (এআই) এমন একটি অবস্থানে পৌঁছতে চলেছে যেখানে একই সঙ্গে অনেক মানুষের মতো এটি সম্পূর্ণরূপে একজন ব্যক্তির অনুকরণ করে। এমনকি এখানে অবশ্যই একটি যুক্তি রয়েছে যে, আমরা এই মুহূর্তে একটি সিমুলেশনের মধ্যে আছি।

জনসংখ্যা বাড়বে না কমবে?

জ্যাক মা : পৃথিবীর সেরা সম্পদ কাপড় নয়, তেল নয়, বিদ্যুৎ নয়- এটি মানুষের মস্তিস্ক।

মাস্ক : আমি জন্মহার সমস্যার সঙ্গে একমত, যা আপনি আগে উল্লেখ করেছেন। বেশিরভাগ মানুষ বিশ্বাস করে যে, আমাদের অনেক বেশি মানুষ রয়েছে। এটি একটি পুরনো দর্শন। এআই ভালো অবস্থানে আছে, এআই উপকার করতে পারবে, এটা ধরে নিলে বিশ্ব আগামী ২০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বড় যে সমস্যার সম্মুখীন হবে তা হলো জনসংখ্যার ধস।

জ্যাক মা : আমি এটির সঙ্গে সম্পূর্ণ একমত, জনসংখ্যা একটি বিশাল চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হবে।

মাস্ক : সাধারণ প্রতিরোধ হলো অভিবাসন। কোথায় হতে পারে?

জ্যাক মা : আপনি মঙ্গল গ্রহে অভিবাসন করতে চান।

মাস্ক : মঙ্গল গ্রহে মানুষ দরকার। জায়গাটা জনমানবশূন্য।

চাকরি ও শিক্ষার ভবিষ্যৎ

জ্যাক মা : মানুষ চাকরি নিয়ে চিন্তিত, তবে আমি পড়াশোনা নিয়ে উদ্বিগ্ন। আমরা আমাদের বাচ্চাদের যেভাবে শিক্ষা দিই তা মূলত শিল্প বিপল্গবের সময়ের জন্য নকশাকৃত। আমরা কীভাবে মানুষকে দক্ষ ও বুদ্ধিমান করে তুলতে পারি? আমি মনে করি আমাদের শিক্ষার পদ্ধতি পরিবর্তন করা দরকার... আমরা কীভাবে আমাদের বাচ্চাদের আরও সৃজনশীল এবং গঠনমূলক হতে শেখাতে পারি? এটিই মূল... কম্পিউটারগুলোর কেবল চিপ থাকে, মানুষের হৃদয় থাকে। হৃদয় থেকে পাণ্ডিত্য আসে। পরবর্তী ১০, ২০ বছরের জন্য, প্রতিটি মানুষ, দেশ, সরকারকে শিক্ষাব্যবস্থার সংস্কারের দিকে মনোনিবেশ করা উচিত, যাতে আমাদের সন্তানরা চাকরি পেতে পারে তা নিশ্চিত করা উচিত। এমন একটি কাজ যার জন্য সপ্তাহে কেবল তিন দিন, চার ঘণ্টা প্রয়োজন... আমরা যে শিক্ষা ব্যবস্থায় আছি আমরা যদি তা পরিবর্তন না করি, সবাই বিপদে পড়ব।

মাস্ক : ভবিষ্যৎ সম্পর্কে কম ভুল করার জন্য লুপটা বন্ধ করুন। আমি বলব, এটি শিক্ষার বিষয়ে চিন্তা করার সঠিক উপায়। আমি নিউরোলিংকের পথটা বোঝাতে চাইছি, আপনি তাৎক্ষণিকভাবে যে কোনো বিষয় আপলোড করতে পারেন। সুতরাং এটি ম্যাট্রিক্সের মতো হবে। আপনি একটি হেলিকপ্টার ওড়াতে চান? সমস্যা নেই... যদি আপনি কিছু করতে চান, যে কোনো দক্ষতা, আপনাকে কেবল এটি তাৎক্ষণিকভাবে আপলোড করতে হবে। শিক্ষার এই মুহূর্তে যে প্রক্রিয়ায় কাজ করে এটি অত্যন্ত নিম্ন ব্যান্ডউইথের। এটা অত্যন্ত ধীরগতির। লেকচারগুলো সবচেয়ে খারাপ।

আগামীর বাসস্থান : পৃথিবী ও মঙ্গল গ্রহ

জ্যাক মা:আমি প্রশংসা করি যে আপনি মঙ্গল গ্রহে যেতে চান। আমি পৃথিবীতে থাকতেই বেশি আগ্রহী।

মাস্ক : মঙ্গল গ্রহের বিষয়টি হলো, আমি মনে করি ভবিষ্যৎ প্রজন্মের মধ্যে চেতনা অব্যাহত রাখার সম্ভাবনা রয়েছে, এমন কাজগুলো গ্রহণ করা আমাদের পক্ষে গুরুত্বপূর্ণ... আমি মনে করি, আমাদের চেতনা অব্যাহত থাকবে না, কারণ আমরা কোনো এলিয়েনের মুখোমুখি হইনি। এলিয়েনরা কোথায়? এটি ফার্মি প্যারাডক্স। এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন। কীভাবে আমরা কোনো এলিয়েনকে খুঁজে পেলাম না? সেখানে এমন লোক আছে যারা মনে করে আমরা এলিয়েন খুঁজে পেয়েছি। বিশ্বাস করুন, আমাদের এটা নেই। আমি জানতাম... এই ক্রিয়াগুলোর মধ্যে একটি হলো বহু-গ্রহ প্রজাতিতে পরিণত হওয়া বা জীবনের বহু-গ্রহিতা নিশ্চিত করা। একটি নির্দিষ্ট পর্যায়ে একটি সম্ভাবনা রয়েছে যে, কোনো কোনো বাহ্যিক শক্তি বা কিছু অভ্যন্তরীণ অবিস্মরণীয় ত্রুটির কারণে সভ্যতা ধ্বংস হয় বা পর্যাপ্ত পঙ্গু হয় যে, এটি আর কোনো গ্রহে প্রসারিত করতে পারে না।

জ্যাক মা :মঙ্গলে লোক পাঠানো দুর্দান্ত, তবে আমাদের পৃথিবীতে প্রায় ৭.৪ বিলিয়ন মানুষের ব্যাপারে চিন্তা করতে হবে। আপনার মতো আদর্শবানদের আমাদের দরকার। তবে আমাদের মতো আরও আদর্শবান প্রয়োজন, যারা পৃথিবীর উন্নতি করতে প্রতিদিন কঠোর পরিশ্রম করে।

মাস্ক : আমি খুব পৃথিবী ভক্ত। তবে এর বাইরে যাওয়ার চেষ্টা ভবিষ্যতের জন্য কার্যকর বিনিয়োগ হিসেবে মনে হচ্ছে।