জগন্নাথপুরে এক মাসেও অধরা হায়দারের খুনিরা

প্রকাশ: ০৭ জুলাই ২০১৯      

জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে এক মাসেও ধরা পড়েনি হায়দার আমিনের খুনিরা। এ কারণে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন হায়দারের স্বজনরা।

নিহতের স্বজনরা জানান, উপজেলার আশারকান্দি ইউনিয়নের উত্তর দাওরাই গ্রামের ওয়ারিছ উল্লা ও প্রতিবেশী হায়দার আমিনের পক্ষের লোকজনের মধ্যে বাড়ির সীমানা ও পানি নিস্কাশন নিয়ে বিরোধ দেখা দেয়। এর জেরে গত ৬ জুন প্রতিপক্ষের লোকজনের হামলায় হায়দার আমিন (৪৫) নিহত হন। পুলিশ খবর পেয়ে ওই দিন ওয়ারিছ উল্লার স্ত্রী সিতারা বেগমকে আটক করে কারাগারে পাঠায়। এ ছাড়া হামলায় ব্যবহূত দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ৯ জুন বদরুল আমিন বাদী হয়ে গফুর মিয়াকে প্রধান আসামি করে ৯ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাতপরিচয় আরও ৭-৮ জনের বিরুদ্ধে জগন্নাথপুর থানায় হত্যা মামলা করেন।

মামলার বাদী বদরুল আমিন জানান, আব্দুল গফুরের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা অতর্কিতভাবে হামলায় চালিয়ে তার ভাইকে খুন করে। হত্যাকাণ্ডের একমাস পেরিয়ে গেলেও তার ভাইয়ের হত্যাকারীদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। এ কারণে তারা দুশ্চিন্তায় আছেন।

জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান, মামলাটি গত ২৫ জুন সুনামগঞ্জের সিআইডিতে হস্তান্তর করা হয়েছে। সিআইডির উপপরিদর্শক জহির উদ্দিন মামলাটি তদন্ত করছেন।

এ বিষয়ে জানতে সিআইডির উপপরিদর্শক জহির উদ্দিনের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।