লেনদেনে ৪ খাতের প্রাধান্য

প্রকাশ: ২৩ আগস্ট ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

সাম্প্রতিক সময়ের লেনদেনে বড় চার খাতনির্ভর হয়ে পড়েছে শেয়ারবাজার। খাতগুলো হলো- জ্বালানি ও বিদ্যুৎ, প্রকৌশল, ওষুধ ও রসায়ন এবং বস্ত্র। প্রধান শেয়ারবাজার ডিএসইর চলতি সপ্তাহের লেনদেন পর্যালোচনায় দেখা গেছে, সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে গত রোববার মোট লেনদেনের ৫৩ শতাংশের বেশি শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে এ চার খাতে। সর্বশেষ গতকাল বৃহস্পতিবার তা সোয়া ৫৮ শতাংশে উন্নীত হয়েছে।

বাজার সংশ্নিষ্টরা জানান, হিসাব বছর জুনে শেষ হয় এমন কোম্পানিগুলোর শেয়ার কেনাবেচা বেড়েছে। এমন কোম্পানিগুলোর মধ্যে এই চার খাতের কোম্পানি ১৪৪টি, যা মোট তালিকাভুক্ত কোম্পানির ৪১ শতাংশ। তাছাড়া বাজার মূলধন ও কোম্পানি সংখ্যার দিক থেকেও এগুলো ওপরের দিকে আছে। এ খাতের লেনদেন বৃদ্ধির এটাই বড় কারণ।

গতকাল ডিএসইতে মোট ৪৭৮ কোটি ৯০ লাখ টাকা মূল্যের শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে। এর মধ্যে এই চার খাতের প্রায় ২৭৯ কোটি টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে, যা মোটের ৫৮ দশমিক ২৪ শতাংশ। একক খাত হিসেবে সর্বাধিক ৭৫ কোটি ৬৪ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের ১৯ কোম্পানির, যা মোট লেনদেনের পৌনে ১৬ শতাংশ। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা প্রকৌশল খাতের ৩৮ কোম্পানির ৭৩ কোটি ৩৩ লাখ টাকার, তৃতীয় অবস্থানে থাকা ওষুধ ও রসায়ন খাতের ৩২ কোম্পানির সোয়া ৭১ কোটি টাকার এবং চতুর্থ অবস্থানে থাকা বস্ত্র খাতের ৫৫ কোম্পানির ৫৮ কোটি ৭০ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে।

গত বুধবার ডিএসইর মোট ৫৪২ কোটি টাকার লেনদেনে এ চার খাতের অংশ ছিল টাকার অঙ্কে ৩২৪ কোটি টাকা বা মোটের প্রায় ৬০ শতাংশ। মঙ্গলবারের ৪৭৯ কোটি টাকার লেনদেনে এদের অংশ ছিল টাকার অঙ্কে ২৭২ কোটি টাকা বা মোটের সাড়ে ৫৭ শতাংশ। সোমবারের ৫৪২ কোটি টাকার লেনদেনে টাকার অঙ্কে এই চার খাতের ২৬১ কোটি টাকার বা প্রায় ৫৪ শতাংশ কেনাবেচা হয়।

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে গত রোববার ডিএসইতে মোট ৩২৩ কোটি ৭১ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছিল। ওইদিন এ চার খাতের ১৭২ কোটি টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছিল, যা ছিল ওই দিনের লেনদেনের ৫৩ শতাংশের বেশি।

লেনদেনে শীর্ষে থাকার পাশাপাশি গত কিছু দিন ধরে এসব খাতের বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারদরও বাড়ছে। গতকাল ডিএসইতে খাতগুলোর ১৪৪ কোম্পানির মধ্যে ৭৯টির দর বেড়েছে, কমেছে ৪৮টির এবং অপরিবর্তিত থেকেছে বাকি ১৭টির দর।

এসব খাতের বেশিরভাগ শেয়ারদর বাড়লেও সার্বিক হিসাবে মিশ্রধারায় চলছে শেয়ারবাজার। গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৫২ কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে ১৫৯টির দর বেড়েছে, কমেছে ১৪৪টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৪৯টির দর। এতে গতকাল ডিএসইএক্স সূচক ১৩ পয়েন্ট বেড়ে ৫২৩৬ পয়েন্ট ছাড়িয়েছে।

দ্বিতীয় শেয়ারবাজার সিএসইতে অবশ্য অধিকাংশ শেয়ারেরই বাজারদর বেড়েছে। এ বাজারে লেনদেন হওয়া ২৬৫ কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে ১৪০টির দর বেড়েছে, কমেছে ৮৬টির এবং অপরিবর্তিত ৩৯টির দর। এতে এ বাজারের প্রধান সূচক সিএসসিএক্স ৩৪ পয়েন্ট বেড়ে ৯৭৩৪ পয়েন্টে উঠেছে।

এদিকে গত কয়েকদিনের মতো অভিহিত মূল্যের কমে কেনাবেচা হওয়া শেয়ারগুলোর দরবৃদ্ধির ধারা গতকালও অব্যাহত ছিল। ডিএসইতে দরবৃদ্ধির শীর্ষ ১০ কোম্পানির মধ্যে আটটিই ছিল এমন কোম্পানি। কোম্পানিগুলো হলো- ডেল্টা স্পিনার্স, আরএন স্পিনিং, ফারইস্ট ফাইন্যান্স, জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশনস, ফ্যামিলিটেক্স, ঢাকা ডাইং, প্রিমিয়ার লিজিং ও সিএনএটেক্স। এসব শেয়ারের দর ৭ থেকে ৯ শতাংশের বেশি বেড়েছে।

এদিকে গতকালও ১৮ কোম্পানির শেয়ার সার্কিট ব্রেকারের সর্বোচ্চ দরে কেনাবেচা হয়। এর মধ্যে ১৫টির বাজার মূল্য ছিল ১০ টাকার নিচে। ওপরের আট কোম্পানি ছাড়া বাকিগুলো হলো- অ্যাপোলো ইস্পাত, বিআইএফসি, বেক্সিমকো সিনথেটিক্স, কেয়া কসমেটিক্স, তাল্লু স্পিনিং, তুংহাই নিটিং এবং ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ। সার্কিট ব্রেকারের সর্বোচ্চ দরে গতকাল কেনাবেচা হওয়া বাকি তিন শেয়ার হলো- বেক্সিমকো লিমিটেড, রেনউয়িক যজ্ঞেশ্বর এবং শাইনপুকুর সিরামিক্স।