'আগে ক্রিকেট পরে চিকিৎসা' মন্ত্র সাইফের

প্রকাশ: ১০ অক্টোবর ২০১৯

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বিসিবির চিকিৎসক এবং ফিজিওরা মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের ওপরই সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভার দিয়েছেন। কারণ সিদ্ধান্তটা তার ক্যারিয়ারের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বিসিবি থেকে এই বোলারের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে, তিনি পুরোপুরি সুস্থ হয়ে সব ফরম্যাটে খেলতে চান, না কোমরের ব্যথা নিয়ন্ত্রণে রেখে সীমিত পরিসরের ক্রিকেট চালিয়ে যাবেন। এ নিয়ে গত পরশু সাইফউদ্দিনের সঙ্গে কথা বলেছেন বিসিবির প্রধান ফিজিশিয়ান দেবাশীষ চৌধুরী। সাইফউদ্দিন তাকে জানিয়েছেন, চিকিৎসা নিতে গিয়ে বিপিএল এবং টি২০ বিশ্বকাপ হাতছাড়া করতে চান না তিনি। কারণ ইংল্যান্ডে চিকিৎসা নিয়ে পুরোপুরি সুস্থ হতে পাঁচ থেকে ছয় মাস বিশ্রামে থাকতে হবে বলে জানান দেবাশীষ। সাইফউদ্দিন মনে করছেন, এতে টি২০ বিশ্বকাপে খেলা নাও হতে পারে তার। এজন্য চিকিৎসার ঝুঁকি নিতে চান না সাইফউদ্দিন। তবে এ ব্যাপারে ১৫ অক্টোবর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে।

সাইফউদ্দিন নয় বছর ধরে কোমরে ব্যথা নিয়ে খেলছেন। ব্যথা নিয়ন্ত্রণে রাখতে বড় পরিসরের ক্রিকেটে খেলেন না তিনি। কিন্তু বিসিবি চায় পুরোপুরি সুস্থ হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটেই দেশের হয়ে খেলুক সাইফউদ্দিন। এ জন্য তার কোমরের চিকিৎসা ইংল্যান্ডে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বোর্ড। ত্রিদেশীয় সিরিজ না থাকলে এতদিন লন্ডনে বায়োমেকানিক্যাল পরীক্ষা হয়ে যেত তার। দেরি হওয়ায় একদিক থেকে ভালোই হয়েছে। গত দেড় মাসে সাইফউদ্দিনের চোট নিয়ে একটা অ্যাসেসমেন্ট করার সুযোগ পেয়েছে লন্ডনের ন্যাশনাল স্পোর্টস ইনস্টিটিউটের বিশেষজ্ঞরা। কিছুদিন আগেই সাইফউদ্দিনের কোমরের সিটি স্ক্যান রিপোর্ট পাঠানো হয়েছিল ইংল্যান্ডে। এবার রেডিওথেরাপি রিপোর্ট চেয়েছে তারা। তবে প্রাথমিক অ্যাসেসমেন্ট থেকে ন্যাশনাল স্পোর্টস ইনস্টিটিউটের বিশেষজ্ঞরা বিসিবিকে জানিয়েছেন, বায়োমেকানিক্যাল পরীক্ষার পর চিকিৎসাশেষে পুরোপুরি ফিট হতে ছয় মাস লেগে যেতে পারে। এ সময়ে পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে হবে তাকে। এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, 'সাইফউদ্দিনের ব্যাপারটা অনেকদূর এগিয়েছে। লন্ডন থেকে জানানো হয়েছে, ও যদি সব ফরম্যাটে খেলতে চায় তাহলে পুরোপুরি ফিট হতে হবে। এজন্য পাঁচ থেকে ছয় মাস পুরোপুরি বিশ্রামে চলে যেতে হবে। কিন্তু সাইফউদ্দিন চায় বিপিএল এবং টি২০ বিশ্বকাপ খেলতে। ওর সিদ্ধান্তটাই চূড়ান্ত। কারণ এখানে খেলোয়াড়ের মতামতটাই আসল। সুতরাং কোচ, নির্বাচক এবং সাইফউদ্দিন- এই তিনজনে মিলে সিদ্ধান্তে যেতে হবে। ওকে বলেছি, সিদ্ধান্ত নিয়ে আমাকে জানাতে, সেভাবে আমরাও প্রস্তুতি নেব। সে লঙ্গারভার্সনে খেলতে চাইলে একরকম পুরো সুস্থ হতে হবে। তা না চাইলে অন্য ব্যবস্থা নেওয়া হবে।'

সাইফউদ্দিন একপ্রকার সিদ্ধান্ত নিয়েই রেখেছেন, কোমরের ব্যথা পরিচর্যা এবং নিয়ন্ত্রণে রেখে সীমিত পরিসরের ক্রিকেকটা চালিয়ে যেতে চান তিনি। যদিও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাতে ফেনীর এ অলরাউন্ডারকে চিন্তাভাবনা করার সময় দিয়েছে বিসিবি। গতকাল তিনি পরিবার এবং জাতীয় দলের ফিজিও জুলিয়ান ক্যালেফাটোর সঙ্গে কথা বলেছেন। সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভার সাইফউদ্দিনের ওপরই ছেড়ে দিয়েছেন ফিজিও। তিনি বলেন, 'অনেক ভাবলাম। পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছি। আসলে বুঝতে পারছি না, আমার কী করা উচিত। ফিজিও বলেছেন, আমি যেটা বলব সেটাই হবে। প্রথমত বিপিএল সামনে। সামনে টি২০ বিশ্বকাপ। বায়োমেকানিক্যাল পরীক্ষা করালে এবং পুরোপুরি ফিট বা সুস্থ হতে ছয় মাস মাঠের বাইরে থাকতে হবে। সম্পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে হবে। এটা করলে আমি অনেক পিছিয়ে যাব। তাই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া আমার জন্য কঠিন।'

নভেম্বরে জাতীয় দলের টি২০ সিরিজ আছে ভারতে। ওই সিরিজেও খেলতে চান সাইফউদ্দিন। লম্বা সময় খেলা ছাড়া থাকতে পারবে না বলে জানান তিনি, 'আমি ১০ থেকে ১৫ দিন খেলার বাইরে আছি। কিছু করছি না। আমার দম বন্ধ হয়ে আসছে। সেখানে ছয় মাস খেলার বাইরে থাকলে জেলখানায় বন্দি মনে হবে। আমি এগুলো চিন্তা করছি।' তবে ফেনীর এ ক্রিকেটারের চিন্তার জায়গা হলো টি২০ বিশ্বকাপ। এ জন্যই খেলা চালিয়ে যেতে চান তিনি, 'জাতীয় দলে আমার জায়গা এখনও পাকাপোক্ত হয়নি। সামনে আবার টি২০ বিশ্বকাপ আছে। ইংল্যান্ডে ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলেছি। এবার টি২০ বিশ্বকাপটাও খেলতে চাই।'