এসএ গেমস সাঁতার

পদক যখন দুরাশা

প্রকাশ: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ক্রীড়া প্রতিবেদক

২০১৬ সালে শিলং ও গৌহাটিতে অনুষ্ঠিত এসএ গেমসে বাংলাদেশ যে চারটি স্বর্ণ জিতেছিল তার দুটিই এসেছিল সাঁতার থেকে। দেশকে দুটি স্বর্ণ এনে দিয়েছিলেন মাহফুজা খাতুন শিলা। দক্ষিণ এশিয়ার সর্ববৃহৎ এই প্রতিযোগিতার ১৩তম আসর অনুষ্ঠিত হবে নেপালে। ডিসেম্বরে অনুষ্ঠেয় এ গেমসের সাঁতারে স্বর্ণ পদক ধরে রাখা ও পাওয়া নিয়ে শঙ্কা বাংলাদেশের। শুধু স্বর্ণই নয়, রৌপ্য ও ব্রোঞ্জ আসবে কি-না তা নিয়েও সন্দিহান ফেডারেশনের কর্মকর্তারা। গতকাল বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনে জাতীয় বয়সভিত্তিক সাঁতার ও ডাইভিং প্রতিযোগিতাকে সামনে রেখে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে ঘুরেফিরে এসএ গেমস নিয়েই বেশি আলোচনা হয়েছে। ২০১৭ সালের পর আগামীকাল শুরু হচ্ছে বয়সভিত্তিক সাঁতার প্রতিযোগিতা। এই প্রতিযোগিতায় পৃষ্ঠপোষকতা করছে সাইফ পাওয়ার টেক লিমিটেড।

গত আসরে স্বর্ণ জেতা মাহফুজা খাতুন শিলাকে এসএ গেমসে পাওয়া নিয়ে অনিশ্চিয়তা। ফেডারেশন তাকিয়ে দুই সাঁতারু আরিফুল ইসলাম ও জুনাইনা আহমেদকে নিয়ে। গত জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপে আটটি রেকর্ডসহ নয় ইভেন্টে স্বর্ণ জেতা লন্ডন প্রবাসী জুনাইনা গত জুলাইয়ে দক্ষিণ কোরিয়ায় অনুষ্ঠিত বিশ্ব সাঁতার প্রতিযোগিতায় নিজের সেরা স্কোরও করতে পারেননি। একই অবস্থা আরিফুলেরও। সাত মাস আগে এসএ গেমসের জন্য ক্যাম্প চালু করেছে বাংলাদেশ সাঁতার ফেডারেশন। জুনাইনা ইংল্যান্ডে এবং আরিফুল ফ্রান্সে প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপে এই দুই সাঁতারুর পারফরম্যান্স নিয়ে হতাশ ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক এমবি সাইফ, 'ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপে তাদের টাইমিং নিয়ে আমরা হতাশ। এর কারণ তাদের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল। জুনাইনা জানিয়েছিল যে অসুস্থ ছিল। আর আরিফুল ফ্রান্সের যেই ক্লাবে ক্যাম্প করে সেটা নাকি দেড় মাস বন্ধ ছিল। সেই কাগজপত্রও সে আমাদের দেখিয়েছে। বর্তমানে ক্লাবে প্রশিক্ষণে যে টাইমিং করেছে আরিফুল, তাতে আমরা আশাবাদী। তাতে করে এসএ গেমসে ফল এলেও আসতে পারে।'

কিন্তু শুধু পারফরম্যান্স নয়, নেপালের কন্ডিশনও বাংলাদেশের সাঁতারুদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। নেপালে যে পুলে খেলা হবে তা ২৫ মিটারের। কিন্তু বাংলাদেশে খেলা হয় ৫০ মিটারের পুলে। ইতিমধ্যে এটা নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে পাকিস্তান। বাংলাদেশকেও এটা নিয়ে জানিয়ে দিয়েছে। তবে নেপাল যেভাবেই আয়োজন করুক না কেন, বাংলাদেশ খেলবে বলে জানিয়েছেন সাইফ। পুল ছাড়া আরেকটি সমস্যা হলো নেপালের আবহাওয়া। এমনিতেই কাঠমান্ডুতে বেশিরভাগ সময় ঠাণ্ডা থাকে। আর ডিসেম্বরে তো আরও শীত। এই অবস্থায় বাংলাদেশের সাঁতারুরা কতটা পারফরম্যান্স করতে পারবেন তা নিয়ে অনেকেই সন্দিহান।

এসএ গেমসের জন্য ইতিমধ্যে জাপানি কোচ তাকিও ইনোকিকে নিয়োগ দিয়েছে সাঁতার ফেডারেশন। আজ দেশে চলে যাবেন তিনি। এরপর ১৬ সেপ্টেম্বর ক্যাম্পে যোগ দেবেন। শুধু এই জাপানি কোচই নন, এসএ গেমসে সাফল্যের জন্য জাইকার মাধ্যমে আরও একজন কোচ আনার কথা জানিয়েছেন সাঁতার ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক।