ঘুরে দাঁড়ানোর পথ খুঁজছে শান্তরা

প্রকাশ: ২১ আগস্ট ২০১৯

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং- শ্রীলংকা ইমার্জিং এইচপি দলের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে তিন বিভাগেই বাংলাদেশ ইমার্জিং এইচপি দলের পারফরম্যান্স ছিল হতাশাজনক। পেসাররা রান দিয়েছেন অকৃপণভাবে, বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ব্যাটসম্যানরা ক্রিজেই থাকতে পারেননি বেশিক্ষণ। সবকিছুর ফল হিসেবেই এসেছে ৩০৫ রান তাড়া করে ১৮৬ রানের হার। আজ বিকেএসপিতে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে হারলেই তিন ম্যাচ সিরিজটা চলে যাবে লংকানদের হাতে। সিরিজ বাঁচানোর ম্যাচের আগে তাই ঘুরে দাঁড়ানোর পথ খুঁজছে নাজমুল হোসেন শান্তর দল।

গতকাল শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের একাডেমি মাঠে লম্বা সময় অনুশীলন করেছেন ইমার্জিং এইচপি দলের সদস্যরা। স্কিল ট্রেনিংয়ের পাশাপাশি সময় কাটিয়েছেন জিমেও। শিষ্যদের অনুশীলনের একফাঁকে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন দলের কোচ সাইমন হেলমুট। প্রথম ম্যাচে দলের পারফরম্যান্স যে তাকে হতাশ করেছে, সেটা অকপটেই স্বীকার করেন এই অস্ট্রেলিয়ান কোচ। বলেন, সিরিজে ঘুরে দাঁড়াতে হলে আজকের ম্যাচে তিন বিভাগেই উন্নতি করতে হবে দলকে, 'প্রথম ম্যাচে ক্রিকেটাররা যেভাবে খেলেছে, তাতে আমি হতাশ হয়েছি। ৩০০-এর বেশি রান তাড়া করার জন্য যেভাবে ইনিংস গড়তে হয়, ব্যাটসম্যানরা তার কিছুই করতে পারেনি। হ্যাঁ, ৩০০ রান তাড়া করাটা কঠিন, তবে বিকেএসপির মাঠে সেটা মোটেও অসম্ভব নয়। তবে গতকাল (গত পরশু) আমি ক্রিকেটারদের সঙ্গে কথা বলেছি। জাতীয় দলের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারও তাদের সঙ্গে কথা বলেছে। মাশরাফি অনেকটা সময় দিয়েছে তাদের। শক্তিশালী প্রতিপক্ষের বিপক্ষে চাপ সামলে খেলতে পারার ব্যাপারটা তারা এখনও শিখছে। পরের ম্যাচে ব্যাটিং, বোলিং এবং ফিল্ডিং তিন ম্যাচেই উন্নতি করে ঘুরে দাঁড়াতে হবে তাদের।'

শ্রীলংকা ইমার্জিং দলের কোচ চামিন্ডা ভাসও মনে করেন, সিরিজ বাঁচানোর ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াবে বাংলাদেশ। তবে শিষ্যরা উপভোগের মন্ত্রে উজ্জীবিত হয়ে মাঠে নিজেদের কাজটা করে যাবেন বলেই আশা তার, 'প্রথম ম্যাচটা বাংলাদেশ খারাপ খেলেছে। এমন দিন সবার ক্ষেত্রেই আসতে পারে। আমি নিশ্চিত, তারা বেশ শক্তভাবে ঘুরে দাঁড়াবে। তাদের অনুশীলন দেখেই বোঝা যায়, তারা হাল ছেড়ে দিচ্ছে না। আমার দলের ছেলেরা সময়টা উপভোগ করছে এবং ঠিকঠাক প্রস্তুতি নিচ্ছে। এখন মাঠে গিয়েও এভাবে নিজেদের খেলাটাকে উপভোগ করার পথ খুঁজতে হবে তাদের।'

তরুণ এই ক্রিকেটারদের মধ্যে প্রতিভা এবং আগ্রহের অভাব না দেখলেও ফিটনেস নিয়ে তাদের আরও কাজ করার তাগিদ দিয়েছেন শ্রীলংকান ক্রিকেটের কিংবদন্তি পেসার ভাস। বলেন, 'তাদের প্রতিভা নিয়ে কোনো সংশয় নেই। তবে ফিটনেস নিয়ে আরও কাজ করতে হবে। শুধু বাংলাদেশ নয়, শ্রীলংকার উঠতি ক্রিকেটারদের ক্ষেত্রেও একই কথা খাটে। তারা এখনও তরুণ, এই সময়টাই ফিটনেস উন্নত করার জন্য আদর্শ।'