আইকন পছন্দের অধিকার থাকছে ফ্র্যাঞ্চাইজিদের

প্রকাশ: ১১ আগস্ট ২০১৯      

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ঘন ঘন নিয়ম পরিবর্তনের কারণে সমালোচনার মুখে পড়েছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। এরই মধ্যে রংপুর রাইডার্সে কোচ টম মুডি ও খুলনা টাইটান্সের কোচ মাহেলা জয়াবর্ধনে প্রকাশ্যে তাদের সমালোচনা করেছেন। অধিকাংশ ফ্র্যাঞ্চাইজিও কড়া ভাষায় প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে। এরই মধ্যে আগামী ১৮ আগস্ট থেকে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর সঙ্গে বৈঠক শুরু করবে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। সেখানে নিবন্ধন, চার বছরের চুক্তি, অর্থনৈতিক বিষয়সমূহ, প্লেয়িং কন্ডিশন, বাইলজ ও আনুষঙ্গিক বিষয়গুলো নিয়ে বিস্তারিতভাবে আলোচনা হবে। একটি সূত্রে জানা গেছে, ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর দাবির মুখে সম্ভবত তাদের আইকন খেলোয়াড় পছন্দের অধিকারে হাত দেবে না বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। যার মানে, এরই মধ্যে আইকন খেলোয়াড় টেনে ফেলা ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোকে বিষয়টি নিয়ে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে না।

গত মাসের শেষ দিনে বেশ ঘটা করেই সাকিব আল হাসানকে দলে টানার ঘোষণা দিয়েছিল রংপুর রাইডার্স। এর চার দিন পরই বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়েছিল, দলগুলোর সঙ্গে আনুষ্ঠানিক কোনো চুক্তি না হওয়ায় সাকিবের এই দলবদলের কোনো গ্রহণযোগ্যতা নেই তাদের কাছে। শুধু সাকিবই নন, বিপিএলের দলবদলের বাজারে এরই মধ্যে বেশ কয়েকজন তারকা ক্রিকেটারের ঠিকানা বদলের কথা শোনা গেছে। ঘটা করে ঘোষণা না এলেও গত আসরে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সে খেলা তামিম ইকবালের খুলনা টাইটান্সে নাম লেখানো কিংবা মুশফিকুর রহিমের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সে যাওয়ার ঘটনা এখন ওপেন সিক্রেট। অধিকাংশ ফ্র্যাঞ্চাইজি তো বিদেশি ক্রিকেটারদের নিশ্চিত করে ফেলেছে আরও আগেই। তবে ছয় বছর মেয়াদি প্রথম চক্রের কথা বলে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল জানিয়েছিল, তাদের কারও দলবদলই গ্রহণযোগ্য নয়। তাদের মতে, আগামী ডিসেম্বরে শুরু হতে যাওয়া সপ্তম আসর থেকে শুরু হবে চার বছর মেয়াদি দ্বিতীয় চক্র। চার বছরের চুক্তির পরই ড্রাফট থেকে খেলোয়াড় টেনে দল গঠন করতে হবে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোকে। বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের এ ঘোষণার পরই তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখায় বেশ কয়েকটি ফ্র্যাঞ্চাইজি। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের অনেক পরিচালকও এমন নিয়মে অবাক হয়েছেন। যে কারণে আইকন পছন্দের বিষয়টি সম্ভবত ফ্র্যাঞ্চাইজিদের হাতেই থাকছে। তবে বিষয়টি নিশ্চিত হবে ১৮ আগস্ট থেকে শুরু হতে যাওয়া বৈঠকে।

এরই মধ্যে ফ্র্যাঞ্চাইজিদের কাছে বৈঠকের দিনক্ষণ জানিয়ে চিঠিও পৌঁছে দিয়েছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। প্রতিটি ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে আলাদাভাবে বৈঠক করবেন তারা। ১৮ আগস্ট খুলনা টাইটান্স ও রংপুর রাইডার্সের মালিক পক্ষের সঙ্গে বৈঠকে বসবে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। ১৯ আগস্ট আলোচনা হবে ঢাকা ডায়নামাইটস ও রাজশাহী কিংসের সঙ্গে। ২০ আগস্ট প্রথমে বৈঠক হবে চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স কর্তৃপক্ষের সঙ্গে। ওই দিন সন্ধ্যায় সিলেট সিক্সার্সের সঙ্গে বৈঠকে বসলে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। তবে বাকি ফ্র্যাঞ্চাইজিদের মতো সিলেটের মালিক পক্ষের সঙ্গে চার বছর মেয়াদি চুক্তি ও আনুষঙ্গিক বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা হবে না। সিলেটের কাছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের এক কোটি টাকা পাওনা আছে, সে সঙ্গে খেলোয়াড় ও কোচদের গত আসরের বেতনও বাকি আছে তাদের। সে পাওনা পরিশোধের ব্যাপারে বৈঠকে আলোচনা হবে। এরপর তাদের সঙ্গে নতুন চুক্তির বিষয়টি আসবে। তবে চিটাগাং ভাইকিংসের মালিক ডিবিএল গ্রুপের সঙ্গে বৈঠক হচ্ছে না। এরই মধ্যে ডিবিএল গ্রুপ জানিয়ে দিয়েছে যে, তারা আর দল পরিচালনা করবে না। চিটাগাং ফ্র্যাঞ্চাইজির জন্য নতুন মালিক চেয়ে দরপত্রও আহ্বান করা হয়েছে। নতুন মালিকদের সঙ্গে ২১ বা ২২ আগস্ট বৈঠকে বসতে পারে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল।