বয়স পঁয়ত্রিশ চলছে। কিন্তু মাশরাফি মুর্তজার বোলিংয়ের ধার একটুও কমেনি। বরং বয়সের সঙ্গে তিনি যেন আরও শানিত হচ্ছেন। ক্যারিয়ারের এ পড়ন্ত বেলায় এসে সবাইকে পেছনে ফেলে প্রিমিয়ার লীগে উইকেট সংগ্রহের নতুন রেকর্ড গড়লেন তিনি। লিস্ট 'এ' মর্যাদা পাওয়ার পর গত মৌসুমে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের হয়ে ৩৫ উইকেট নিয়ে রেকর্ডটা গড়েছিলেন আবু হায়দার রনি। দুই ম্যাচ আগেই বাঁহাতি এ পেসারের রেকর্ড ছুঁয়ে ফেলেছিলেন মাশরাফি। গতকাল খেলাঘরের বিপক্ষে ৩ উইকেট নিয়ে রেকর্ডকে নিজের করে নিলেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক। অবশ্য এখনও এক ম্যাচ বাকি। তাই মাশরাফির এই রেকর্ড আরও সমৃদ্ধ হতে পারে।

প্রিমিয়ার লীগের শেষ রাউন্ডে কোনো উইকেট না পেলেও মাশরাফির এই রেকর্ড যে এবার হাতছাড়া হচ্ছে না, সেটা একপ্রকার নিশ্চিতই। কারণ কাজী অনিক, আসিফ হাসান ও ফরহাদ রেজারা তার চেয়ে ১০ উইকেট পেছনে। দেড় যুগের ক্যারিয়ারের শেষ বেলায় এসে সব তরুণকে ছাপিয়ে রেকর্ডটা করাটা সত্যিই অবাক করার মতো। তবে মাশরাফির মধ্যে বিষয়টি নিয়ে খুব একটা উচ্ছ্বাস নেই। অভিজ্ঞতা এবং আগের চেয়ে সবকিছু সামাল দেওয়ার ক্ষমতা বাড়ায় এ সাফল্য এসেছে বলে মনে করছেন মাশরাফি। তবে এ রেকর্ড খুব বেশি দিন টিকে থাকুক সেটা মাশরাফি চান না। গতকাল খেলাঘরের বিপক্ষে জয়ের পর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে তিনি বলেন, 'ভালো লাগছে যে রেকর্ড হয়েছে। লীগের শুরুতে জানতাম যে, এবার পুরো টুর্নামেন্ট খেলার সুযোগ আছে। যেহেতু টি২০ খেলছি না। এখন পর্যন্ত সবকিছু ভালো যাচ্ছে। এটাই আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ। তবে আমি চাই না এ রেকর্ড খুব বেশি দিন টিকে থাকুক। চাইব পরের বারই যেন কেউ ভেঙে ফেলে। তাতে বোঝা যাবে যে আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটের উন্নতি হচ্ছে।'

তবে খুব বেশি উচ্ছ্বসিত না হলেও রেকর্ডটিতে তৃপ্ত মাশরাফি, 'আমার জন্য খুব ভালো সুযোগ ছিল নিজেকে তুলে ধরার। আমি যেটা চেয়েছিলাম, সেটা আমি করতে পেরেছি। অনেক কিছুই নতুন করে করতে পেরেছি। আন্তর্জাতিক মানের না হলেও আমার আত্মবিশ্বাস বাড়াতে সহায়তা করেছে। উইকেটসংখ্যা বড় ব্যাপার নয়। যেটায় আমার মনোযোগ ছিল, এখন পর্যন্ত সেটা করতে পেরেছি। এটাই বড় ব্যাপার।' মাশরাফির চাওয়া তার এ রেকর্ড যেন কোনো পেসার ভাঙে।

মন্তব্য করুন