সেদিন সংবাদ সম্মেলনে পাশে থাকা বৃদ্ধ বাবা কাঁধে হাত রাখার পরই অঝোরে কেঁদে ফেলেন স্টিভ স্মিথ। বলতে থাকেন আমি আমার এই বৃদ্ধ বাবা আর মাকে খুব কষ্ট দিয়েছি। 'আমার কারণেই আজ তারা দুখী। সন্তান হয়ে এই দায় আমি এড়াতে পারি না।' সংবাদ সম্মেলন থেকে বেরিয়ে স্মিথের বাবা পিটার স্মিথও বলেছিলেন, ছেলের বিপদে পাশে থাকবে তার পুরো পরিবার। কিন্তু এ ক'দিনে তারাও খুব ভেঙে পড়েছেন। ছেলের ক্রিকেট কিটস গ্যারেজে ছুড়ে ফেলে দিয়েছেন তিনি। ক্রিকেট থেকে ছেলেকে দূরে রাখার চেষ্টা করছেন পিটার। অস্ট্রেলিয়ার সেভেন নিউজ নামের একটি চ্যানেলে একটি ভিডিও প্রচার করা হয়েছে। যেখানে দেখা যায়, পিটার স্মিথ গাড়ি থেকে স্টিভের ক্রিকেট কিটস ছুড়ে ফেলে দিচ্ছেন গ্যারেজের এক কোণে। ঘর থেকেও বাকি কিটসগুলো তিনি এনে জমা করেছেন গ্যারেজে। তবে ওই ভিডিওতেই দেখা যায়, পিটার ওই কিটসগুলো ফেলতে ফেলতে বলছেন- সব ঠিক হয়ে যাবে, সে লড়াই করে ফিরবেই!

এ তো গেল স্মিথের বাড়ির অবস্থা, ওয়ার্নারের পবিরারেও চলছে সাম্প্রতিক ঘটনা নিয়ে অস্বস্তিকর একটি ব্যাপার। বিশেষ করে ওয়ার্নারের স্ত্রী ক্যান্ডিস মনে করছেন, ওয়ার্নারের এই ঘটনার জন্য তিনিও খানিকটা দায়ী। কেননা দক্ষিণ আফ্রিকায় এবার খেলতে গিয়ে ওয়ার্নারকে তার স্ত্রীকে নিয়ে দর্শক গ্যালারি থেকে কটু কথা শুনতে হয়েছিল। আসলে ক্যান্ডিসের সাবেক প্রেমিক ছিলেন নিউজিল্যান্ড রাগবি দলের খেলোয়াড় সোনি উইলিয়ামসন। এবারে দক্ষিণ আফ্রিকায় গিয়ে যখন প্রোটিয়া উইকেটকিপার ডি ককের সঙ্গে ওয়ার্নারের ঝামেলা শুরু হয়। তার পর থেকেই ওখানকার দর্শক ক্যান্ডিসের পুরনো প্রেমিক উইলিয়ামসনের মুখোশ পরে এসেছিল মাঠে। তারা ওয়ার্নারকে দেখলেই উইলিয়মাসনের কথা বলে তাকে খেপিয়ে তুলত। যা নিয়ে এই সফরে মানসিকভাবে বিধ্বস্ত ছিলেন ওয়ার্নার। রোববার ব্রিটিশ একটি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ক্যান্ডিস সেটাই বলেছেন- 'মনে হচ্ছে সব দোষ আমার। এটা আমাকে ভেতরে ভেতরে মেরে ফেলছে। ভয়ঙ্কর এক অবস্থার মধ্যে রয়েছে ডেভিড। ওর অনেক কিছু বলার ছিল। কিন্তু কীভাবে বলবে বুঝতে পারছিল না। মানুষ ওকে বুঝতে চাইছে না। দক্ষিণ আফ্রিকায় আমি প্রতিদিন মাঠে যেতাম। কিন্তু ওই মুখোশ পরে আমাকে ব্যঙ্গ করা হতো। আমাকে নিয়ে গান বাঁধা হতো- এগুলো কষ্টকর হলেও সহ্য করতে হতো। এসব ব্যাপারে ডেভিড আমাকে সব সময় সুরক্ষা দিয়ে গেছে। কিন্তু আমি নিজেকে সামলাতে পারতাম না। রোজ হোটেলে ফিরে কাঁদতাম।' আমার মনে হয়, এসব ব্যাপার ডেভিডকে মানসিকভাবে বিক্ষিপ্ত করে তুলেছিল।

মন্তব্য করুন