প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ডের করা ৩০৭ রানের বিপরীতে ২৭৮ রানে অলআউট হয় নিউজিল্যান্ড। দ্বিতীয় ইনিংসে কুক-রুটরা তোলেন ৩৫২ রান। ফলে জয়ের জন্য কিউইদের সামনে দাঁড়ায় ৩৮২ রানের লক্ষ্য। গতকাল চতুর্থ দিন শেষে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৪২ রান সংগ্রহ করেছে নিউজিল্যান্ড। হাতে সময় একদিন, করতে হবে আরও ৩৪০ রান। এমন বড়সড় অঙ্কটা দেখার পর হয়তো লাথাম-উইলিয়ামসনরা ম্যাচ বাঁচানোর পথেই হাঁটবেন। চতুর্থ দিনের শেষ বিকেলের ব্যাটিংটা তেমন ইঙ্গিতই দিচ্ছে। খুব ধীরস্থিরভাবে এগোচ্ছে ইংলিশরা। অপরাজিত দুই ব্যাটসম্যান টম লাথাম করেছেন ৭৯ বলে ২৫ রান আর জিত রাভালের নামের পাশে জমা হয়েছে ৫৯ বলে ১৭। এর আগে প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ডের হয়ে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১০১ রান করেন জনি বেয়ারস্টো। মার্ক উড করেন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫২ রান। নিউজিল্যান্ডের পক্ষে বল হাতে ৪ উইকেট শিকার করেন পেসার ট্রেন্ট বোল্ট। বাকি ৬ উইকেট ঝুলিতে পুরেন আরেক পেসার টিম সাউদি। এরপর দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে দ্রুতই অ্যালিস্টার কুককে হারায় ইংলিশরা। ট্রেন্ট বোল্টের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন ১৪ রান করা কুক। দ্বিতীয় উইকেটে জেমস ভিন্স ও মার্ক স্টোনম্যানের ১২৩ রানের জুটিতে বড় সংগ্রহের ভিত পায় সফরকারীরা। এই জুটি ভাঙেন সাউদি, ৬০ রান করা স্টোনম্যানকে ফিরিয়ে। খানিক বাদে বোল্ট তুলে নেন ৭৬ রান করা ভিন্সকে। তবে ডেভিড মালানকে নিয়ে নিরাপদেই তৃতীয় দিন শেষ করেন ইংলিশ অধিনায়ক জো রুট।

এরপর ৩ উইকেটে ২০২ রান নিয়ে চতুর্থ দিন শুরু করা ইংল্যান্ডের শুরুটা খারাপ হয়নি। চতুর্থ উইকেটে মালান আর রুট মিলে দলকে উপহার দেন ৯৭ রানের জুটি। ব্যক্তিগত ৫৩ রানে মালান বিদায় নেওয়ার পর পরই আউট হন রুট। শেষ দিকে ছোট ছোট জুটি গড়ে দলের সংগ্রহটা তিন অঙ্কের ঘরে নিয়ে যায় ইংল্যান্ড। দ্বিতীয় ইনিংসে নিউজিল্যান্ডের হয়ে চারটি উইকেট নিয়েছেন ডি গ্র্যান্ডহোম। দুটি করে সাফল্য পেয়েছেন ওয়াগনার ও বোল্ট। খালি হাতে ফেরেননি টিম সাউদি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
ইংল্যান্ড
প্রথম ইনিংস ৩০৭ ও দ্বিতীয় ইনিংস ৩৫২/৯ ডি. (অ্যালিস্টার কুক ১৪, জেমস ভিন্স ৭৬, মার্ক স্টোনম্যান ৬০, জো রুট ৫৪, ডেভিড মালান ৫৩, বেন স্টোকস ১২, মার্ক উড ৯, জ্যাক লিচ ১৪*; ডি গ্র্যান্ডহোম ৪/৯৪, ট্রেন্ট বোল্ট ২/৮৯, টিম সাউদি ১/৬৫, নেইল ওয়াগনার ২/৫১)

নিউজিল্যান্ড
প্রথম ইনিংস ২৭৮ ও দ্বিতীয় ইনিংস ৪২/০ (টম লাথাম ২৫*, জিত রাভাল ১৭*)

মন্তব্য করুন