শাস্তিটা কি একটু বেশিই হয়ে গেল? স্মিথ আর ওয়ার্নারের কান্নাভেজা চোখে সংবাদ সম্মেলনের পর এই প্রশ্ন ক্রিকেট বিশ্বে। যার প্রতিক্রিয়া পড়েছে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট বোর্ডেও। আইসিসি যেখানে দুই ক্রিকেটারকে এক ম্যাচ করে নিষিদ্ধ করেছে সেখানে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ওই দু'জনকে এক বছর নিষিদ্ধ করেছে। সে সঙ্গে বেনক্রফটকে ৯ ম্যাচ সব ধরনের ক্রিকেট থেকে বিরত রাখার শাস্তি দেওয়া হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটারদের সংগঠন থেকে আবেদন করা হয়েছে যেন এই তিনজনকে ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলার অনুমতি দেওয়া হয়। তাদের যুক্তি- এক বছর পর যদি এই ক্রিকেটারদের জাতীয় দলে ফেরানো হয় তাহলে তাদের পারফরম্যান্সের মাপকাঠি কী হবে? তারা যদি এক বছর কোনো ধরনের ক্রিকেট খেলতেই না পারেন তাহলে এক বছর পর জাতীয় দলে ফিরবেন কীভাবে? এই যুক্তির পরই অস্ট্রেলিয়ান বোর্ড থেকে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। যেখানে বলা হয়েছে, ওই তিন ক্রিকেটার ঘরোয়া ক্রিকেট খেলতে পারবেন। 'ওই তিন ক্রিকেটার ঘরোয়া ক্লাব ক্রিকেট খেলতে পারবেন। একই সঙ্গে ক্রিকেট কমিউনিটির সঙ্গেও কাজ করতে পারবেন। তবে তাদের ১০০ ঘণ্টা ক্রিকেট কমিউনিটির হয়ে কাজ করতে হবে।' এই বিবৃতির সঙ্গেই জানানো হয়, ১১ এপ্রিল মেলবোর্নে একটি শুনানির আয়োজন করা হয়েছে তিন ক্রিকেটারের সঙ্গে। অস্ট্রেলিয়ার ক্লাব ক্রিকেটে খেলতে পারলেও আইপিএলের মতো বিদেশি লীগে খেলার ব্যাপারে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সুনির্দিষ্ট কোনো নির্দেশনা নেই। 'ওটা বিদেশি লীগ, আমরা বলতে পারি না, সেখানে ওরা খেলতে পারবে কি-না। কেননা বিষয়টি বিদেশি লীগ কর্তৃপক্ষের ওপর নির্ভর করছে।' ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী সাদারল্যান্ডের কথাতেই স্পষ্ট, আগের চেয়ে কিছুটা নমনীয় হয়েছে তারা।

মন্তব্য করুন