বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়

মূল বইটি ভালোভাবে পড়বে

প্রকাশ: ০৯ নভেম্বর ২০১৯      

মোছা. জাকিয়া ইসলাম, প্রভাষক, বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আবদুর রউফ পাবলিক কলেজ, ঢাকা

প্রিয় শিক্ষার্থীরা, সবাই সুস্থ আছ আশা করি। পরীক্ষার আগের সময়টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ সময় পুষ্টিকর খাবার ও প্রচুর পানি খাবে আর বিশ্রাম নেবে। বেশি রাত জাগবে না। প্রথমেই বলি 'বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়' প্রশ্নপত্র হাতে পাওয়ার পর সম্পূর্ণ প্রশ্নটা ভালোভাবে পড়বে। এরপর প্রথমেই শূন্যস্থান লিখবে, প্রশ্নের সিরিয়ালে ১নং প্রশ্নের ক থাকলে ক-ই লিখতে হবে। যেমন- ১। (ক), ১. (খ), ১. (গ), ১. (ঙ) এভাবে শেষ করতে হবে। শূন্যস্থানে শুদ্ধ বানান লিখবে এবং এই বানানেই পুরো এক নম্বর রয়েছে। লেখা শেষ করে দেখবে যে ১২টা শূন্যস্থানই লেখা হয়েছে কি-না। শূন্যস্থানের শব্দটার নিচে আন্ডারলাইন দেবে। অনেক সময় আন্ডারলাইন দিতে ভুলে যাও।

দ্বিতীয় : অল্প কথায় উত্তর দাও। এখানে ১৫টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়। এখানেও যদি তুমি সিরিয়াল অনুযায়ী লেখ, তাহলে কোনো প্রশ্নের উত্তর বাদ পড়বে না। ফাঁকা অংশ সিরিয়াল থাকলে সহজেই তুমি বুঝতে পারবে কোনো প্রশ্নের উত্তর বাদ পড়েছে কি-না। কোনো কারণে উত্তর মনে পড়ছে না, সেটা ফাঁকা রেখে পরের লেখা শুরু করবে। এতে সময় নষ্ট কম হবে। পরে উত্তরটা লেখার চেষ্টা করবে।

তৃতীয়ত : বাঁ পাশ-ডান পাশ লেখার সময় প্রথমে বাঁ পাশের বাক্যাংশ তুলে ছোট করে একটি ড্যাশ চিহ্ন দিয়ে ডান পাশের বাক্যাংশ লিখতে হবে।

চতুর্থ : সর্বশেষ হলো, বড় প্রশ্নের উত্তর লেখা। এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ বড় প্রশ্নের কয়েকটা ভাগ থাকে। প্রতিটি ভাগ খুব ভালো করে পড়ে উত্তর লিখবে। যে প্রশ্নের উত্তরে ৪-৫টি বাক্য লিখতে হবে বলা হয়, সেই উত্তরগুলো পয়েন্ট করে বাক্য সম্পূর্ণ লিখতে হবে।

সম্পূর্ণ প্রশ্নের উত্তর লেখা শেষ হলে রিভিশন দেবে এবং গুনে গুনে মিলিয়ে নেবে প্রতিটি উত্তর তুমি সম্পূর্ণ করেছ কি-না। বানান খেয়াল করবে এবং এক প্রশ্নের উত্তর লেখা শেষ করে পরের প্রশ্নের উত্তর লেখার আগে ২-৩ বাক্য লেখার জায়গা ফাঁকা দিয়ে উত্তর লিখবে। লেখার সময় কাটাকাটি কম করবে। ভুল হলে একটানে কেটে দেবে। এই বিষয়গুলো খেয়াল রেখে পরীক্ষা দিলে অবশ্যই ভালো করবে।