নতুন রূপে এসেছে দক্ষিণ এশিয়ার শীর্ষস্থানীয় ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম দারাজ। এরই অংশ হিসেবে নতুন লোগো ও ব্র্যান্ড লুক উন্মোচন করেছে প্রতিষ্ঠানটি। দারাজ বাংলাদেশের পাশাপাশি পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, নেপাল ও মিয়ানমারে তাদের ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানে একই লোগো যুক্ত করেছে। গত রোববার থেকে দারাজের ওয়েবসাইটে নতুন লোগো দেওয়া হয়েছে।

দারাজকে নতুন আঙ্গিকে হাজির করার ক্ষেত্রে অন্যতম পরিবর্তন হচ্ছে এর নতুন আইকন। দারাজ কর্তৃপক্ষ জানায়, ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের ক্রেতাদের সঙ্গে যুক্ত করার বার্তা রয়েছে নতুন লোগোটিতে। লোগোর কেন্দ্রে একটি তীর রয়েছে, যা প্রবৃদ্ধি এবং দ্রুত ডেলিভারিতে দারাজের সাফল্য আলোকপাত করে। এটি দেখতে একটি 'প্লে বাটন'-এর মতো, যা ব্যবহারকারীদের জন্য আরও অসাধারণ কনটেন্ট অভিজ্ঞতা তৈরিতে দারাজের ক্রমাগত উদ্ভাবনকেও ইঙ্গিত করে। নতুন ব্র্যান্ডিংয়ের অংশ হিসেবে দারাজ নতুন ওয়েবসাইট (উধৎধু.পড়স) চালু করেছে। এ সাইটে দারাজের পরিচয় ও কার্যক্রম সম্পর্কে মানুষকে আরও ভালোভাবে বুঝতে সহায়তা করবে। দারাজ বাংলাদেশের প্রধান বাণিজ্যিক কর্মকর্তা তাজদীন হাসান বলেন, নতুন লোগো উন্মোচনের মাধ্যমে গ্রাহকদের আরও ভালো অভিজ্ঞতা দিতে কাজ করবে দারাজ। দারাজ অ্যাপে ইতোমধ্যে আমাদের বিক্রেতারা সরাসরি যুক্ত হয়ে তাদের প্রচার-প্রচারণায় লাইভ করতে পারেন। গ্রাহকরা কেনাকাটার ওপর কয়েন পেতে পারেন। এ ভার্চুয়াল কয়েনে অর্জিত পয়েন্ট কেনাকাটায় ব্যবহার করতে পারেন। সামনে এমন আরও নতুন ফিচার আসবে। প্রতিদিন অ্যাপ ও ওয়েবসাইটে ১৫ লাখেরও বেশি মানুষ দারাজের ওয়েবসাইটে ঢুঁ মারেন। দারাজে বর্তমানে শতাধিক ক্যাটাগরির এক কোটি ৯০ লাখের বেশি পণ্য রয়েছে। প্রতি মাসে ২০ লাখের বেশি পণ্য বিশ্বের সব প্রান্তে পৌঁছে দিচ্ছে দারাজ। দারাজ বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মোস্তাহিদল হক বলেন, গ্রাহকদের কেনাকাটার অভিজ্ঞতায় নতুন মাত্রা যোগের পাশাপাশি ই-কমার্স খাতকে এগিয়ে নিতে আমরা সম্পূর্ণ রূপান্তরের মধ্যে রয়েছি। আশা করছি, এই পরিবর্তন দারাজ গ্রাহকদের নতুন অভিজ্ঞতা দেবে। দারাজ গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও বিয়ার্কে মিকেলসেন মনে করেন, দারাজের এই নতুন সূচনা প্রতিষ্ঠানটিকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে ভূমিকা রাখবে। উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে চীনের আলিবাবা গ্রুপ দারাজকে অধিগ্রহণ করে।

প্রযুক্তি প্রতিদিন প্রতিবেদক

মন্তব্য করুন