বাকপ্রতিবন্ধীদের জন্য ইশারা ভাষা

প্রকাশ: ০৪ আগস্ট ২০১৯      

মঞ্চের বাইরে প্রতিবেদক

বাকপ্রতিবন্ধীদের জন্য ইশারা ভাষা

ইশারা ভাষার প্রশিক্ষণ

মানুষের পারস্পরিক যোগাযোগের মাধ্যম ভাষা। বিভিন্ন দেশের মানুষ ভিন্ন ভিন্ন ভাষায় কথা বলে মনের ভাব প্রকাশ করে থাকে। সব ভাষায় মূলত স্বর বা শব্দ করে মনের ভাব প্রকাশ করা হয়। কিন্তু শ্রবণ ও বাকপ্রতিবন্ধী মানুষের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম ইশারা ভাষা। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের মতো আমাদের দেশের শ্রবণ ও বাকপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা বাংলা ইশারা ভাষায় যোগাযোগ করে থাকে। ইশারা ভাষায় তারা তাদের অধিকার নিয়ে আন্দোলন করে আসছে বহু দিন ধরে। শুধু ভাষাগত পার্থক্যের কারণে প্রতিনিয়ত বঞ্চিত হচ্ছে এ ভাষার মানুষ।

ইশারা ভাষা নিয়ে খুব বেশি কাজ না হলেও একেবারে যে হচ্ছে না, তা নয়। বর্তমানে বাংলাদেশের ২টি টিভি চ্যানেলে ইশারায় সংবাদ উপস্থাপনসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ইশারা ভাষার দোভাষীদের লক্ষ্য করা যায়। তেমনই একজন আহসান হাবিব। তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশনের তালিকাভুক্ত সাংকেতিক ভাষার সংবাদ উপস্থাপক। ছেলেবেলা থেকেই তিনি ইশারা ভাষা নিয়ে বেশ কিছু কাজ করে চলেছেন এই ভাষা ও এই ভাষার মানুষের জন্য। তিনি বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থার অনুষ্ঠানে দোভাষীর কাজ শুরু করেন ছাত্রজীবন থেকেই। এর পাশাপাশি শ্রবণ ও বাকপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের নিয়ে থিয়েটার বানিয়েছেন। ঝিনাইদহ জেলার বিভিন্ন স্থানে পথনাটক, মঞ্চনাটকও প্রদর্শিত হয়। এসব নাটক হতো তাদের ভাষায়। আহসান হাবিব বলেন, 'মানুষ খুব উপভোগ করত এ নাটক। এর অভিনয়শিল্পী সবাই শ্রবণ ও বাকপ্রতিবন্ধী ছিল। তাদের ব্যঙ্গ করে না ডাকা, তারাও আমাদের মতো সুস্থ-স্বাভাবিক মানুষ এবং ভাষাগত পার্থক্য ছাড়া তাদের আর আমাদের মাঝে কোনো পার্থক্য নেই- এটাই ছিল নাটকের মূল বার্তা।'

২০০৯ সালে পিপল থিয়েটার আয়োজিত আন্তর্জাতিক শিশু ও ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী নাট্য উৎসবে জাতীয় গ্রন্থাগার মিলনায়তনে অংশগ্রহণ করেন আহসান হাবিব ও তার দল। 'আমরাও পারি' নাটকে শ্রবণ ও বাকপ্রতিবন্ধীদের অভিনয় মুগ্ধ করেছিল দর্শকদের। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটের প্রযোজনায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ ইশারা ভাষায় রূপান্তর করে অডিও-ভিজুয়াল নির্মাণের কাজটি করার সুযোগ পেয়েছি আমি। এটি পরিচালনা করেছেন আবির শ্রেষ্ঠ। প্রায় দুই মাস ধরে কাজটি করা হয়। বঙ্গবন্ধুর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট আয়োজিত আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে ইশারা ভাষায় বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের ডিভিডির মোড়ক উন্মোচন করেন।