জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে কোটি টাকা মূল্যের কষ্টিপাথরের একটি মূর্তিসহ আফতাব উদ্দিন ও আব্দুল মজিদ নামের দু'জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গত রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার মহাদান ইউনিয়নের শ্যামেরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জামালপুর র‌্যাব-১৪ সিপিসি-১, পুলিশ পরিদর্শক দৌলত জামান বাদী হয়ে গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সরিষাবাড়ী থানায় মামলা করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার মহাদান ইউনিয়নের শ্যামেরপাড়া গ্রামে রোববার সন্ধ্যায় সংঘবদ্ধ চোরাকারবারির সদস্য ফরহাদের বাড়িতে একটি কষ্টিপাথর আদান প্রদানের প্রস্তুতি চলছিল। সংঘবদ্ধ চোরাকারবারিরা দীর্ঘদিন ধরে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে মূল্যবান কষ্টিপাথর সংগ্রহ করে দেশের বাইরে পাচার করে আসছে। জামালপুর র‌্যাব-১৪ সিপিসি-১, পুলিশ পরিদর্শক দৌলত জামানের নেতৃত্বে একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে ফরহাদ হোসেনের বাড়ির চারপাশে অবস্থান নেয়। পরে অভিযান চালিয়ে ১৩ ইঞ্চি লম্বা কালো রঙের সাড়ে ১১ কেজি ওজনের একটি কষ্টিপাথরসহ দু'জনকে আটক করে। পরে আফতাব ও মজিদের বিরুদ্ধে র‌্যাব মামলা করে। মামলায় কষ্টিপাথরের মূর্তির আনুমানিক মূল্য ধরা হয়েছে এক কোটি টাকা। আফতাব উদ্দিন উপজেলার মহাদান ইউনিয়নের মহাদান গ্রামের মৃত রাফাদান মণ্ডলের ছেলে ও আব্দুল মজিদ পৌরসভার বাউসি গজারিয়া গ্রামের মৃত আজম মণ্ডলের ছেলে।

জামালপুর র‌্যাব-১৪ সিপিসি-১, পুলিশ পরিদর্শক দৌলত জামান জানান, উপজেলার মহাদান ইউনিয়নের সংঘবদ্ধ চোরাকারবারির সদস্য ফরহাদের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে সাড়ে ১১ কেজি ওজনের কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য প্রায় এক কোটি টাকা। এ সময় দু'জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সরিষাবাড়ী থানার ওসি মীর রকিবুল হক জানান, কষ্টিপাথর উদ্ধারের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। গ্রেপ্তার দু'জনকে গতকাল সোমবার জামালপুর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন