কুমিল্লার তিতাসে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে ৫৩ জন, সংরক্ষিত সদস্য পদে ৮৬ এবং সাধারণ সদস্য পদে ৩৩৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। গত রোববার বিকেলে মনোনয়নপত্র জমা শেষে স্বতন্ত্র প্রার্থীর ভাতিজাকে অপহরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। পরে আহত অবস্থায় পুলিশ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।

উপজেলার জগতপুর ইউনিয়ন পরিষদের স্বতন্ত্র প্রার্থী ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি গোলাম মাওলা অভিযোগ করেন, চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান বেশ কয়েক দিন ধরে তাকে বিভিন্ন মাধ্যমে হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছেন যেন তিনি (গোলাম মাওলা) নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করেন। তাই তিনি নিরাপত্তাহীনতার কারণে তার ভাতিজা এরশাদ জাহানকে দিয়ে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে এরশাদ ফেরার পথে উপজেলা পরিষদের গেটে মজিবুরের ছেলে জনি, জেমি ও তার সহযোগী রঞ্জুসহ সাত-আটজন এরশাদের ওপর হামলা চালিয়ে তাকে মারধর করে তুলে নিয়ে যায়। পুলিশের সহযোগিতায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জগতপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মজিবুর রহমান বলেন, তিনি সেখানে ছিলেন না। কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা তিনি জানেন না। এরশাদকে তিনি কখনও দেখেননি।

তিতাস থানার এসআই বিল্লাল হোসেন জানান, বিষয়টি ওসি তাকে জানালে তাৎক্ষণিক তিনি উপজেলা হাসপাতালের সামনে থেকে এরশাদকে উদ্ধার করে গোলাম মাওলার ছেলের কাছে পৌঁছে দেন।

তিতাস থানার ওসি সুধীন চন্দ্র দাস বলেন, এ ব্যাপারে কোনো অভিযোগ পাননি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোমিনুর জাহান বলেন, এ বিষয়ে তাকে কেউ কিছু জানায়নি।

মন্তব্য করুন