রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলায় আওয়ামী লীগের চিৎমরম ইউপির চেয়ারম্যান প্রার্থী নেথোয়াই মারমার হত্যার ঘটনায় তিন দিনেও মামলা হয়নি।

খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি গতকাল সোমবার নিহতের পরিবারকে সান্ত্বনা দিতে গিয়েছিলেন। এ সময় রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি চিংকিউ রোয়াজা, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য ও কাপ্তাই উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অংসুই ছাইন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম খলিল, জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য সম্পাদক রফিকুল মাওলা, জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য মং উচিং মারমা ময়না, পৌর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি উসাং মং, চন্দ্রঘোনা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার ইসলাম চৌধুরী বেবীসহ আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, ১১ নভেম্বরের ঘোষিত চিৎমরম ইউনিয়নের নির্বাচন পিছিয়ে দিয়ে আগামী ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে বলে উপজেলা নির্বাচন সূত্রে জানা গেছে।

গত শনিবার রাত ১২টার দিকে কাপ্তাই উপজেলায় আওয়ামী লীগের চিৎমরম ইউপির চেয়ারম্যান প্রার্থী নেথোয়াই মারমাকে (৫৬) আগাপাড়া এলাকায় তার বাড়িতে ঢুকে একদল দুর্বৃত্ত গুলি করে হত্যা করে। তিনি আওয়ামী লীগের চিৎমরম ইউনিয়ন সভাপতি ছিলেন।

গত রোববার দুপুরে লাশ তার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করার পর রাতেই পারিবারিক শ্মশানে তার দাহক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।

চন্দ্রঘোনা থানার ওসি ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, নেথোয়াই মারমা হত্যার ঘটনায় এখনও কোনো মামলা হয়নি। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

মন্তব্য করুন