৪ বছরেও নির্মাণ হয়নি সেতু

দুর্ভোগে দুই উপজেলার অর্ধলাখ মানুষ

প্রকাশ: ০৭ জুন ২০২০

ভবতোষ রায় মনা, ফুলছড়ি (গাইবান্ধা)

ফুলছড়ি-গাইবান্ধা সড়কে সদর উপজেলার বোয়ালী ইউনিয়নের পূর্ব বোয়ালী গ্রামে বন্যায় চার বছর আগে ক্ষতিগ্রস্ত সেতুটি অকেজো হয়ে পড়ে। তবে ওই স্থানে দীর্ঘ সময়েও নতুন সেতু নির্মিত না হওয়ায় ভোগান্তির শিকার হচ্চেন দুই উপজেলার অর্ধলাখ মানুষ। এখন ওই সেতুর পাশে একটি বাঁশের সাঁকোই ভরসা এলাকাবাসীর।

সরেজমিন দেখা যায়, ভারী যানবাহন তো দূরের কথা মোটরসাইকেল, বাইসাইকেল ও রিকশাভ্যানও যাতায়াত করতে পারছে না এ সাঁকো দিয়ে। সেতুটির এক পাশের মাটি ধসে যাওয়ায় ঝুঁকি নিয়ে চলছে হালকা এসব যানবাহন।

সদর উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, ২০১৬ সালের ৩০ জুলাই ফুলছড়ির সিংড়িয়ায় ব্রহ্মপুত্র বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙে পানির প্রবল স্রোতে সেতুর নিচের মাটি সরে যাওয়ায় সেতুটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এতে ওই সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়। পরে ক্ষতিগ্রস্ত ওই সেতুর পাশে একটি বাঁশের সাঁকো তৈরি করা হয়।

এ পথে চলাচলকারী হুমায়ুন কবির, আব্দুর রাজ্জাক, বাবলু মিয়াসহ কয়েকজন পথচারী জানান, আগে সেতুর ওপর দিয়ে খুব সহজেই চলাচল করতে পেরেছি। সেতু না থাকায় এখন সাঁকোর ওপর দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে।

ধান ব্যবসায়ী আজাদ মিয়া বলেন, সেতুটি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পর থেকেই ট্রলিতে করে ফুলছড়ির কালিরবাজারে ধান নিয়ে যেতে পারছি না। ভ্যানে করে পরিবহন করতে বেশি টাকা খরচ হচ্ছে।

অটোবাইক চালক মনু মিয়া বলেন, সেতুটি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পর থেকেই এ পথে মানুষের চলাচল কমে গেছে। বেশি টাকা ও সময় লাগলেও মানুষ অন্য পথে চলাচল করছে। এ পথে চলাচল করতে গিয়ে কষ্ট পেতে হচ্ছে গর্ভবতী নারী ও অসুস্থ মানুষকে।

উদাখালী ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বলেন, বর্তমানে সাঁকো দিয়ে সব ধরনের যানবাহন চলাচল করতে না পারায় চরম ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে সদর ও ফুলছড়ি উপজেলার মানুষের। এখানে একটি নতুন সেতু নির্মাণ করা খুবই জরুরি। বিষয়টি নিয়ে উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন বৈঠকে আলোচনা হলেও কোনো কাজ হচ্ছে না।

ফুলছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান জি এম সেলিম পারভেজ বলেন, ওই সড়ক দিয়ে শহরমুখী এই উপজেলার ৫০ হাজারেরও বেশি মানুষ চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। আর ক্ষতিগ্রস্ত সেতুটি আমার এলাকার বাইরে হওয়ায় আমি তেমন কোনো উদ্যোগ নিতে পারছি না। সেতুটি সদর উপজেলার সীমান্তে হওয়ায় নির্মাণে গাফিলতি করা হচ্ছে।