আখাউড়ায় মুক্তিযোদ্ধার বাড়ি দখলের চেষ্টা

প্রকাশ: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি

আখাউড়া উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা মাইনুল ইসলামের পৌর শহরের মসজিদপাড়ার বাড়িটি দখলের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ভুক্তভোগীরা জানান, মাইনুল ইসলাম তার বাবার ওয়ারিশসূত্রে পাওয়া জমিতে নিজ খরচে ভবন নির্মাণ করে বসবাস করে আসছেন। ২০১৫ সালে মাইনুল মারা যান। দুই মাস আগে মাইনুল ইসলামের ছোট ভাই ফখরুল ইসলাম একটি রেজিস্ট্রিবিহীন ও দাবিনামাবিহীন দলিল নিয়ে এসে মরহুম মাইনুল ইসলামের পরিবারকে দেখান। মাইনুলের ছেলে মাজহারুল ইসলাম রাজীব বলেন, 'ভুয়া দলিল তৈরি ও বাবার স্বাক্ষর জাল করে চাচা ফখরুল প্রভাবশালী মহলের সহযোগিতায় বাড়িটির দোতলা অংশ দখলের পাঁয়তারা করছেন। ভবন করার সময় বাবা তার কাছ থেকে ৫৬ লাখ টাকা নিয়েছিলেন বলে দাবি করেন চাচা। চাচার দাবি, এ টাকার বিনিময়ে বাড়ির দ্বিতীয় তলার পশ্চিমদিকে দুই রুম, দুটি বাথরুম, একটি বারান্দাসহ ডুপ্লেক্স বাড়ির দোতলায় ওঠার সিঁড়ি তাকে দিয়েছেন। অথচ বাবা বেঁচে থাকতে এ বিষয়ে তিনি কিছু বলেননি, কিংবা চাচাও এ দাবি নিয়ে আমাদের কাছে আসেননি।' এ বিষয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগসহ থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। ওসি রসুল আহমদ নিজামী বলেন, এ নিয়ে চাচা-ভাতিজা উভয়ের অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগ প্রসঙ্গে ফখরুল ইসলাম বলেন, বাড়িটি আমাদের পৈতৃক সম্পত্তি। জরিপের সময় দুই ভাইয়ের নামে বাড়ির ভূমি রেকর্ড হয়। আমাদের কোনো বণ্টননামা দলিল হয়নি। বড় ভাই মাইনুল ইসলাম বাড়ি নির্মাণ করার সময় আমার কাছ থেকে ৫৬ লাখ টাকা নিয়েছেন। তার বিনিময়ে ওই ভবনের দোতলা আমার নামে দাবিনামাবিহীন দলিল সৃষ্টি করে দিয়েছেন তিনি।

জেলা প্রশাসক হায়াত উদ দৌলা খান বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।