সড়কজুড়ে খানাখন্দ দুর্ভোগ নিত্যসঙ্গী

নেত্রকোনা

প্রকাশ: ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

সংস্কারের অভাবে জেলার নেত্রকোনা-পূর্বধলা সড়কে দীর্ঘদিন ধরে বেহাল দশা বিরাজ করছে। সড়কজুড়ে সৃষ্টি হয়েছে অসংখ্য খানাখন্দ। সড়কের অধিকাংশ জায়গায় উঠে গেছে পিচ, সুরকি। সৃষ্টি হয়েছে ছোট-বড় অসংখ্য গর্তের। সড়কের দু'পাশের মাটি সরে গিয়ে ১০-১২ ফুটের রাস্তা ৪-৫ ফুটে দাঁড়িয়েছে। বেহাল এই সড়ক দিয়ে দুটি বড় যানবাহন পাশাপাশি চলতে পারে না। একটি অতিক্রম করার সময় অন্যটির গায়ে লেগে যায়। অনেক সময় সড়কের গর্তে আটকে যায় গাড়ি। এ সময় দু'পাশে অন্যান্য যানবাহনকে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে হয়। এপাশ-ওপাশ দুলতে দুলতে চলতে হয় যানবাহনকে।

নেত্রকোনা জেলা সদর থেকে পূর্বধলার দূরত্ব প্রায় ১৫ কিলোমিটার। ১৫ মিনিটের ওই দূরত্ব যেতে সময় লাগে কমপক্ষে একঘণ্টা। ভাঙাচোরা এই সড়ক দিয়ে হেঁটে চলাও কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায়। মানুষের দুর্ভোগ দেখার যেন কেউ নেই। ফলে জেলা সদরে যাতায়াতের একমাত্র সড়ক দিয়ে পূর্বধলা ও সীমান্তবর্তী দুর্গাপুরের মানুষকে দীর্ঘদিন ধরে দুর্ভোগ আর জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে।

নেত্রকোনা জেলা সদর থেকে পূর্বধলা উপজেলাবাসীর যাতায়াতের একমাত্র সড়কপথ নেত্রকোনা-পূর্বধলা পাকা সড়ক। এই সড়ক দিয়ে জেলার দুর্গাপুর, ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলার মানুষও চলাচল করে। এ সড়কে ট্রাক, সিএনজি, অটোরিকশা, মোটরসাইকেল, রিকশাসহ বিভিন্ন যানবাহন চলাচল করে। ভাঙাচোরা সড়কের কারণে বাস চলাচল করে না ওই সড়কে। সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধীন এ সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে কোনো ধরনের সংস্কার না হওয়ায় বর্তমানে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

সড়কের শিমুলতলা, জামতলা, নারায়ণডহর, মহাদেবপুর, বর্শিকুড়া, কুমড়িসহ প্রায় সব সড়কের বিভিন্ন স্থানে অসংখ্য ছোট-বড় গর্ত। এসব গর্তে হাঁটুপানি জমে রয়েছে। ট্রাক, মোটরসাইকেল, অটোরিকশা আটকে যাচ্ছে এসব গর্তে।

নেত্রকোনা সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী দিদারুল আলম তরফদার দুর্ভোগের কথা স্বীকার করে বলেন, সড়কটি ১৮ ফুট প্রস্থে পুনর্নির্মাণের জন্য একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ নিয়েছিল। ওই প্রতিষ্ঠানের সামর্থ্য না থাকায় পুনরায় দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। চলতি বর্ষা মৌসুম শেষে সংস্কার কাজ শুরু হবে।