পাবনায় পালিত হচ্ছে অনুকূল ঠাকুরের আবির্ভাব তিথি

প্রকাশ: ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

পাবনা অফিস

শ্রীশ্রী ঠাকুর অনুকূল চন্দ্রের ১৩২তম আবির্ভাব তিথিতে পাবনার হেমায়েতপুরে চলছে তিন দিনব্যাপী মহোৎসব। জাতীয় পতাকা উত্তোলন, প্রদীপ প্রজ্বালন, বিশেষ প্রার্থনা, ধর্মীয় আলোচনাসহ নানা পূজা-অর্চনা ও মহাস্নানোৎসবের মধ্য দিয়ে আবির্ভাব তিথি পালিত হচ্ছে। শুক্রবার এ উৎসবের উদ্বোধন করেন পাবনা-৫ আসনের সাংসদ গোলাম ফারুক প্রিন্স।

দেশ-বিদেশ থেকে ঠাকুর অনুকূল চন্দ্রের কয়েক হাজার ভক্ত এতে অংশ নিয়ে পুণ্য মিলন মেলায় মেতে ওঠেন। মহোৎসবকে কেন্দ্র করে আশ্রম চত্বরে জমে উঠেছে বিভিন্ন পণ্যসামগ্রীর মেলাও।

শ্রীশ্রী ঠাকুর অনুকূল চন্দ্র সৎসঙ্গ আশ্রমের সভাপতি ড. রবীন্দ্রনাথ সরকারের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন অতিরিক্ত সচিব রনজিত দাস, পাবনার জেলা প্রশাসক কবির মাহমুদ, পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম বিপিএম-পিপিএম।

প্রধান বক্তা ছিলেন কলকাতা থেকে আসা ঠাকুরের একনিষ্ঠ অনুসারী প্রলয় মজুমদার। যুগল কিশোর ঘোষের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন মহোৎসবের আহ্বায়ক ড. নরেশ চন্দ্র মধু।

১৩২ বছর আগে মহাপুরুষ শ্রীশ্রী ঠাকুর অনুকূল চন্দ্র হেমায়েতপুরের মাটিতেই জন্মেছিলেন। সেখানেই তিনি বড় হন। তিনি সাম্য ও অসাম্প্রদায়িকতার বাণী দিয়ে সব ধর্ম-বর্ণের মানুষের মন জয় করেন। তাই এ মহাপুরুষের জন্মদিনকে ভক্তরা প্রতি বছর আবির্ভাব দিবস হিসেবে পালন করেন।